সুস্মিতা সেন এই চিঠিটি তাঁর মেয়ে রেনিকে লিখেছেন এবং কি সুন্দর এই চিঠি!

সুস্মিতা সেন এই চিঠিটি তাঁর মেয়ে রেনিকে লিখেছেন এবং কি সুন্দর এই চিঠি!

আমরা সবাই জানি যে সুস্মিতা সেন অত্যন্ত কর্তব্যপরায়ণা মা এবং তাঁর প্রিয়তমা কন্যাদ্বয় - রেনি (১৬) ও আলিশা (৭) কে খুবই ভালবাসেন।  প্রকৃতপক্ষে, তিনি ইনস্টাগ্রামে যোগ দেবার পরই তাঁর সুন্দর মেয়েদের বেশ কয়েকটি ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেছেন কিন্তু তার বড় মেয়ে রেনিকে লেখা এই পুরানো চিঠিটি সবকিছু ছাপিয়ে গেছে।

তিনি তাঁর সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন, "আমরা #মায়েরা যখন আমাদের #সন্তানদের জন্য কিছু লিখতে শুরু করি তখন আমাদের #কাগজ শেষ হবার উপক্রম হয়।  এই কার্ডটি #রেনিকে পাঠিয়েছিলাম যখন সে ২০১৩ সালে #বোর্ডিং স্কুলে গিয়েছিল সে বলে ... হয় আমাকে #ইন্সটাগ্রামে যোগ দিতে দাও নাহলে এটা তোমার #শেয়ারিং #লাভলেটার #ডটারসচয়েস এ পোষ্ট কর।"

তাঁর স্নেহপূর্ণ চিঠিটিতে লেখা, "তোমার মায়ের হৃদয় থেকে তোমার জন্ম।  তুমি তোমার সৌভাগ্য অর্জন করার জন্য ওখানে আছ।  তুমি জ্ঞান প্রাপ্ত হয়ে নিজেকে পরিপূর্ণ করে নাও, এটিই একদিন তোমার সবচেয়ে বেশী শক্তি হবে ....."

পুরো চিঠিটি দেখুন

সুস্মিতা সেন তাঁর জীবনের খুঁটিনাটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং হ্যান্ডেল মারফৎ ভক্তদের সাথে শেয়ার করে থাকেন এবং এর মধ্যে বেশিরভাগেই তাঁর মেয়েদের ছবি এবং ভিডিও থাকে।  তিনি সম্প্রতি তার ছোট মেয়ে আলিশার একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন যাতে সে জল দূষণ সম্বন্ধে তার নিজের একটি লেখা রিভাইজ করছে।  

তিনি লিখেছেন, "#গুডমার্নিংওয়ার্ল্ড ... আমি এই ছোট্ট #মাঞ্চকিন পুরো খেয়ে ফেলতে পারি !!!   আমাদের #ওয়ার্ল্ড এই প্রজন্মের সাথে মহান হাতে আছে !!  #আলিশা #এজ6 #আরলিমরনিং #রিভিজনটাইম #জলপ্রদুষণ বিষয়ে #স্কুলপ্রোজেক্টের লেখা লিখছে!  #ওউ #রেস্পেক্টলাইফ # প্রাউড মা এবং #দিদি।"

রেনি এবং আলিশা কিভাবে সুস্মিতা সেনকে মাদার’স ডে তে অবাক করে দিয়েছিল, তা জানতে হলে পড়া চালিয়ে যান।

এছাড়াও প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স মাদার'স ডে উপলক্ষে বিভিন্ন পোস্ট শেয়ার করেছেন।
তিনি লিখেছেন, "#মুহূর্তগুলি #মাদার'স ডে #ডিনারডেট সব তিনটি বড় #সুশিফ্যান্স !!!   রাত ভোর হতেই দেখি মাদার'স ডে পালন করার জন্য #শেফ #মায়ের এই হৃদয়স্পর্শী #বাংলাতে লেখা কথাগুলি সঙ্গে #চকলেট!!!   #আলোড়িত #কৃতজ্ঞ # ভালবাসা।"

তিনি তার ভক্তদের মাঝে আরেকটি ছবি শেয়ার করেছেন এবং আমরা বলতে পারি, তাঁদেরকে একে অপরের সাথে খুবই মনোহর দেখাচ্ছে।

Any views or opinions expressed in this article are personal and belong solely to the author; and do not represent those of theAsianparent or its clients.

Written by

theIndusparent