সময়ের আগে জন্মানো শিশুকে স্তন্যদান সম্পর্কে আপনাকে যা যা জানা উচিত

সময়ের আগে জন্মানো শিশুকে অন্যান্য ফর্মুলা বেবিফুড বা তথাকথিত পুষ্টিকর তৈরী খাবার না খাইয়ে  বুকের দুধ খাওয়ালে শিশুরা আরও তাড়াতাড়ি বেড়ে ওঠে।

 

If you are a mother for the first time, then you are not finished, if your child is born before it, then you have to deal with other challenges.

 

And your biggest concern is breastfeeding the baby.

 

Children born before time: what you need to know.

 

Normally a baby born before time is taken care of at the Neo Natal Intensive Care Unit, so that the child is able to breathe, meet the deficiency of fluid, help control the disease and, most importantly, as if he gets the proper nutrition.

 

Children's charisma, such as breastfeeding, sticking, breast cancer, swelling, and even breathing, children born before time do not develop. Breastfeeding became very difficult for this reason.

 

Although it is necessary to breastfeed every newborn baby, it is very difficult for children born before time because their development is incomplete.

 

Why breast milk is important for my child born before?

 

In the case of premature births, your breast milk works in the flower of the womb and helps in the growth and development of the child. That is why your hormones naturally provide a lot of milk on your breasts, so that your premature baby gets the necessary nutrients, vitamins, minerals and proteins.

 

In fact, the milk produced in your body for premature babies contains plenty of sodium, phosphorus, chloride, protein, iron, fat calories and magnesium. These are all the essential components for the development and development of a premature baby. In addition, they also help to clear his ulcer.

 

But, there are many other benefits of breastfeeding immediately after the birth of such children.

 

  • Breast-infested have antibodies, inflammatory properties and living cells that help your premature baby get a strong resistance, because, in the past, the prevention of disease-borne children is less than full-time children. 
  • It is easily digested from formula babyfood and since it works for better disease prevention, it also protects the baby's intestines.
  • With the growth of your breast milk, there is also an increase in brain growth and strong bones.

এসব সত্বেও যদি আপনি ফর্মুলা বেবিফুড খাওয়ানোর পক্ষপাতী হন, সেটা কিন্তু কখনোই সর্বোত্তম নয়।

কারণ, শিল্পজাত ফর্মুলা বেবিফুডে শিশুটির হাঁপানি, নেক্রোটাইজিং এন্টারোকোলাইটিস (এন ই সি -- অকালজাত শিশুদের একটি মারাত্মক আন্ত্রিক রোগ), অ্যালার্জি, সাডেন ইনফ্যান্ট ডেথ সিন্ড্রোম (SIDS), হৃদরোগ, এমনকি মেনেঞ্জাইটিসও হতে পারে।

কিন্তু ঠিক কখন আপনি আপনার সময়ের আগে জন্মানো শিশুকে মায়ের দুধ দেওয়া শুরু করবেন সেটিই সম্ভবতঃ সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয়।

অকালজাত শিশুকে কখন আমার স্তন্যদান শুরু করা উচিত?

এটি আপনার সময়ের আগে জন্মানো শিশুর বয়স / সপ্তাহের ওপর ভিত্তি করে ঠিক করা যেতে পারে।

 

  1. ২৮ সপ্তাহে আপনার শিশুটি খুব কম সময়ের জন্য ঠোঁট লাগিয়ে মাত্র দু'একবারই টানতে পারবে কারণ এই সময়ে তার শক্ত করে ধরার প্রবৃত্তি হয়ে যায়। যদিও সমন্বয় সাধন করতে পারে না ফলে, স্তন্যদান এখনও মুশকিল হবে।
  2. ৩০ থেকে ৩২ সপ্তাহের বয়সে পৌঁছালে আপনার শিশুটি স্তন থেকে দুধ টেনে গিলতে পারবে আর যখন ৩২ সপ্তাহের কাছাকাছি পৌঁছাবে, সে ভালভাবে চুষতে, গিলতে আর সেই সঙ্গে শ্ব্বাস নিতেও পারবে -- ভালভাবে খাওয়ার জন্য সাবলীল নড়াচড়াও করতে পারবে।
  3. ৩৪ সপ্তাহের মধ্যে অন্যান্য নবজাত শিশুদের মতো সেও বুকের দুধ খেতে পারবে, ঠিকঠাক সমন্বয়ও করে নিতে পারবে আর বুকের দুধ খেতে খেতে সহজভাবে শ্বাস প্রশ্বাস নিতে পারবে।

কিন্তু যদি আপনি ক্যাঙ্গারু কেয়ার ও আরও কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরণ করেন, তাহলে সে আরও আগেই খেতে পারবে।

আমার অকালজাত শিশুটিকে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য আমা্র কি করা উচিত?

  • কাঙ্গারুর যত্ন : ডাক্তার আপনাকে কাঙ্গারুর যত্ন প্রক্রিয়াটি শুরু করতে পরামর্শ দেবে। অকালজাত শিশুর যত্ন নেওয়ার জন্য এটি ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউএইচও) অনুমোদিত সর্বোত্তম উপায় হিসেবে স্বীকৃত এবং তার হূদস্পন্দনের হার ও দেহে অক্সিজেনের মাত্রা স্থির রাখতে সহায়তা করে। এটি বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য তাকে তৈরি করে এবং মস্তিষ্কের বিকাশে সহায়ক। অনভিজ্ঞদের জন্য, কাঙ্গারুর যত্ন একটি পদ্ধতি যেখানে অকালজাত শিশুটিকে মা তাঁর ত্বকের সঙ্গে শিশুর ত্বককে সংস্পর্শে রেখে আদর্শভাবে স্তন্যদান করেন।
  • ক্রমাগত ত্বকের সঙ্গে ত্বক : এই পদ্ধতিতে আপনার অকালজাত বাচ্চাটিকে যত বেশীক্ষণ আপনার ত্বকের সংস্পর্শে রাখবেন ততই ভালো বলে মনে করা হয়। এর মানে, যখন সে ভেন্টিলেশন,  ক্রমাগত ইতিবাচক বাতাসের চাপ (সিপিএপি), ইন্টারভেনাস তরল, ইত্যাদির সহায়তা নিচ্ছে এবং পাশাপাশি জন্ডিস বা অন্য কোনও রোগের জন্য চিকিৎসার চলছে, তখনও। তাকে খালি বুকে রাখলে তা আপনার অকালজাত শিশুটিকে আরও তাড়াতাড়ি থিতু হতে সাহায্য করবে এবং আপনার ডাক্তার শিশুটিকে সঠিক অবস্থানে স্থাপন করতে সাহায্য করবে যাতে তার শ্বাস প্রশ্বাসে অসুবিধা না হয়।
  • আপনার দুধ ত্বরাণ্বিত করুন : যদি এখনই আপনার অকালজাত শিশুটিকে খাওয়ানোর না থাকে, তাহলে সবচেয়ে ভালো হচ্ছে, জন্ম দেওয়ার এক ঘন্টার মধ্যে হ্যান্ড এক্সপ্রেস করে নেওয়া। পাম্পিং বা হ্যান্ড এক্সপ্রেস দ্বারা প্রতি দু'ঘণ্টা ব্যবধানে এটি করে যাবেন। প্রথম সপ্তাহে আপনার লক্ষ্যমাত্রা হবে ৭৫০-১০০০ মি লি পাম্প করা যাতে আপনার অকালজাত শিশুটির জন্য যথেষ্ট হয়। যদি আপনার যমজ অকালজাত শিশু হয়ে থাকে, পরিমাণ দ্বিগুণ হবে। মনে রাখবেন, আপনার স্তনের দুধ হল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টিকর উপাদান এবং জন্মের পরই আপনার অকালজাত শিশুটিকে তা অবশ্যই দেওয়া উচিত।
  • খাওয়ানোর বিকল্প পদ্ধতি ব্যবহার করুন : যদি বুকের দুধ খাওয়ানো চ্যালেঞ্জিং বলে মনে হয়, তাহলে আপনার শিশুকে খাওয়ানোর অন্য উপায় রয়েছে। তা প্যারেন্টেরাল পুষ্টি (শিরাতে ইন্টারভেনাস খাদ্য) থেকে শুরু করে নাক বা মুখ দিয়ে টিউব ফিডিং হতে পারে -- নাসিকা বা মুখ-খাদ্যনালী টিউব (এন জি টি, ও জি টি), আবার কাপে করে খাওয়ানো আর আঙুলে খাওয়ানো এবং অবশেষে স্তন। এটা আপনার দুধ আসার ওপর এবং আপনার বাচ্চা স্তন্যপান এবং গর্ভপাত করতে সক্ষম কিনা তার ওপরও নির্ভর করে।

এবার, সপ্তাহের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে এবং যেমন যেমন আপনার অকালজাত শিশুটিকে আগের পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করে বুকের দুধ খাওয়াতে থাকবেন, তার ওজনও বৃদ্ধি পাবে।

ডাব্লিউ এইচ ও দ্বারা তৈরী অকালজাত শিশুদের বেড়ে ওঠার একটি আদর্শ ওজন তালিকা নীচে দেওয়া হল।

  • মাসিক পরবর্তী সময় থেকে ৩২ সপ্তাহ বয়স পর্যন্ত ২০ গ্রাম / দিন বা আনুমানিক ১৫০-২০০ গ্রা্ম / সপ্তাহ
  • মাসিক পরবর্তী সময় থেকে ৩৩ থেকে ৩৬ সপ্তাহ বয়স পর্যন্ত ২৫ গ্রাম / দিন বা আনুমানিক ২০০-২৫০ গ্রা্ম / সপ্তাহ
  • মাসিক পরবর্তী সময় থেকে ৩৭ থেকে ৪০ সপ্তাহ বয়স পর্যন্ত ৩০ গ্রাম / দিন বা আনুমানিক ২৫০-৩০০ গ্রা্ম / সপ্তাহ

যাইহোক, যদি আপনার বাচ্চার বৃদ্ধি ডাব্লিউ এইচ ও দ্বারা প্রস্তাবিত হারে না হয় (যদিও সব বাচ্চারা একরকম নয় এবং তাদের ওজনও স্বাভাবিকভাবেই আলাদা আলদা হতে পারে), তাহলে আপনি আপনার স্তনের দুধে চর্বির মাত্রা পরীক্ষা করতে চাইতে পারেন। হ্যাঁ, আপনি ঠিকই পড়েছেন!

 

আমি কিভাবে আমার অকালজাত শিশুটির ওজন বাড়াতে পারি?

যদিও আপনি আপনার শিশুটিকে যথেষ্ট পরিমাণ দুধ খাওয়াচ্ছেন, আপনার মনে হতে পারে যে তার যতটা ওজন বাড়া উচিত, সে হিসাবে বাড়ছে না। এটি বুকের দুধে মাখনের মাত্রা কম থাকলে হতে পারে।

যাইহোক, চিন্তা করার কোন প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার বুকের দুধে মাখনের মাত্রা বাড়াতে পারেন, যার ফলে, স্বাভাবিকভাবেই স্তনদুগ্ধে ক্যালোরির মাত্রা বৃদ্ধি পাবে।

  • স্তন কম্প্রেশন : আদর্শগতভাবে, আপনার স্তনদুগ্ধে মাখন উপাদান বাচ্চাকে খাওয়ানোর শেষের দিকে বৃদ্ধি পায়। তাই স্তন সংকোচনের (স্তনের গ্রন্থিগুলিকে উদ্দীপিত করতে এবং দুধ বাড়াতে স্তন পেষণ করা) চেষ্টা ফলপ্রসূ হতে পারে । এতে স্তনদুগ্ধে মাখনের পরিমাণ বাড়তে পারে।
  • সন্ধ্যায় খাওয়ানো : কিছু গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে সন্ধ্যায় যে মাতৃদুগ্ধ পাওয়া যায় তা বেশী মাখনযুক্ত আর তাই, বেশী ক্যালোরিসমৃদ্ধ। তাই যদি সম্ভব হয়, আপনি অতিরিক্ত দুধ বের করে পরে কয়েকবার খাওয়ানোর জন্য রাখতে পারেন।
  • স্তনদুগ্ধ সেন্ট্রিফিউজ করা : এটি একটি ডাক্তারি প্রক্রিয়া যা শুধুমাত্র দুধ ব্যাঙ্কে করা যেতে পারে, তবে আপনাকেও এই বিষয়ে অবশ্যই জানা উচিত। এই পদ্ধতিতে, ঘন মাখনের স্তর পাবার জন্য দুধকে ধীর গতিতে সেন্ট্রিফিউজ করা হয়। তারপর মাতৃদুগ্ধে প্রয়োজনীয় পরিমাণ ক্যালরি পাবার জন্য এই স্তরটি রিসাস্পেন্ড করা হয়।
  • মানব দুগ্ধ ফরটিফায়ারস : বুকের দুধ ছাড়াও, আপনার অকালজাত শিশুকে এছাড়াও 'হিউম্যান মিল্ক  ফরটিফায়ারস (এইচএমএফ)' দেওয়া যেতে পারে। এগুলি বাণিজ্যিকভাবে তৈরী গরুর দুধ ভিত্তিক নানা-পুষ্টির ফরটিফায়ারস। তারা স্তনদুগ্ধের পরিপূরক রূপে কাজ করে এবং প্রায়শই অকালজাত শিশুদের দেওয়া হয়। তবে, সব অকালজাত শিশুর এইচএমএফ এর প্রয়োজন হয় না এবং যদি আপনার স্তনে যথেষ্ট দুধ আসে তবে আপনার শিশুর জন্য আর অতিরিক্ত পুষ্টির প্রয়োজন নেই।
  • স্তনদুগ্ধ দাতা : আপনার স্তনে যথেষ্ট দুধ না থাকলে শিশুকে খাওয়ানোর আরেকটি পদ্ধতি হল পেস্টুরাইজড দাতা স্তনদুগ্ধ বেছে নেওয়া, যা মিল্ক ব্যাঙ্কে পাওয়া যায়। অকালজাত শিশুকে কোনও ফর্মুলা বেবিফুড খাওয়ানোর চাইতে এটি অনেক ভালো কারণ এতে পুরোপুরি আপনার স্তনদুগ্ধের মতো পুষ্টি না থাকলেও প্রায় কাছাকাছি থাকে এবং আপনার নিজের দুধ ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত এটি একটি ভাল বিকল্প।

 

অকালজাত শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় আমার আর কি কি মনে রাখা উচিত?

আপনার বাচ্চার ওজন এবং আপনার বুকের দুধের গুণমানের ওপর তীক্ষ্ণ নজর রাখার পাশাপাশি, আপনাকে নীচে দেওয়া বিষয়গুলির প্রতিও নজর রাখতে হবে।

  • ক'বার খাওয়াচ্ছেন : আপনার অকালজাত শিশুটির বেড়ে ওঠার জন্যতাকে কতক্ষণ অন্তর অন্তর খাওয়াচ্ছেন, সেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ডাক্তারের সাথে আলোচনা করলে আপনাকে এক-দেড় ঘন্টা অন্তর খাওয়ানোর জন্য বলা হতে পারে, তবে এটি আবার আপনার অকালজাত শিশুটির স্বাস্থ্যগত অবস্থা আর সেই সঙ্গে তার প্রয়োজনীয়তার ওপরও নির্ভর করে।
  • ঘুমের মধ্যে খাওয়ানো : আপনার ছোট্ট অকালজাত শিশুটির জন্য সারা দিনরাত ধরে প্রতি ঘন্টায় ঘন্টায় খাওয়ানো ক্লান্তিকর হতে পারে, কিন্তু এটি আপনার শিশুর জন্য খুবই আরামদায়ক এবং আশ্বস্তিজনক, তাই নিরুৎসাহিত হবেন না। আপনার শিশুর খাওয়ানো চালিয়ে যান এবং যতটা সম্ভব তাকে তার ত্বকের সঙ্গে আপনার ত্বকের সংযোগে রাখুন।
  • চুষিকাঠি (পেসিফায়ার) এড়িয়ে চলুন : সাধারনতঃ চুষিকাঠি বর্জন করাই সর্বোত্তম কারণ ত্বকের সঙ্গে ত্বকের সংযোগই একটি অকালজাত শিশুকে শান্ত রাখার সেরা উপায় এবং এতে তাকে স্তন ব্যবহার করতে সরগড় হতেও সাহায্য করা হয়, একমাত্র ডাক্তার সুপারিশ করলে অথবা শুধুমাত্র এতেই যদি শিশুটি নিরুদ্বেগ থাকে, তাহলেই চুষিকাঠি ব্যবহার করা যেতে পারে।

 

মনে রাখবেন, সময়ের আগে জন্মানো শিশুকে অন্যান্য ফর্মুলা বেবিফুড বা তথাকথিত পুষ্টিকর তৈরী খাবার না খাইয়ে  বুকের দুধ খাওয়ালে শিশুরা আরও তাড়াতাড়ি বেড়ে ওঠে। তাই আপনার বুকে দুধ কম থাকলেও চিন্তা করবেন না।

আপনার বুকের দুধ বাড়াবার জন্য নানা পদ্ধতি অনুসরণ করুন যেমন, গ্যালাক্সিগগস (খাদ্য এবং শাক সবজি যা মায়ের দুধ বাড়াতে সহায়তা করে) পাশাপাশি হাত দিয়ে স্তন পেষন।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, ধৈর্য ধরুন এবং আপনার বাচ্চাকে যতটা সম্ভব ত্বকের সঙ্গে ত্বকের সংযোগে রাখুন।

 

Source: breastfeeding.support, WHO, bellybelly