শ্বাশুড়ি সমর্থন করলেন পুত্রবধূকে, ছেলেকে বললেন তার স্ত্রীকে ৪.৮৫ কোটি টাকা খোরপোষ দিতে

এমন একটি মনোগ্রাহী ঘটনাও ঘ

এটি এমন একটা গল্প যা আপনাকে কিছুক্ষণের জন্য স্তব্ধ করে দেবে এবং আপনি যা পড়লেন তা বিশ্বাস করে উঠতে পারবেন না।  বিচার বিভাগের ইতিহাসে প্রথমবার বিচারক এমন এক মা্কে দেখলেন, যিনি তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়ে পুত্রবধূ কে সমর্থন করলেন।

হ্যাঁ, ঠিক তাই।  কর্ণাটকের বেঙ্গালুরুতে এই অসাধারণ বিবাহবিচ্ছেদ মামলাটির রায় ঘোষিত হয় গত ২৫ শে জুলাই, ২০১৭। কর্ণাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী স্বর্গীয় এস. আর. কাশপ্পানাওয়ারের পুত্র দেবানন্দ শিবশঙ্করাপ্পা কাশপ্পানাওয়ারকে শহরের একটি আদালত তাঁর স্ত্রীকে ৪ কোটি টাকা খোরপোষ দেবার জন্য নির্দেশ দেয় আর সেটাও দু মাসের মধ্যে।

শ্বাশুড়ি দাঁড়ালেন পুত্রবধূর পাশে

এই মামলাটি শহরের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছিল কারণ দেবানন্দের মা তাঁর পুত্রবধূকে সমর্থন করে নিজের ছেলের বিরুধে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন। দেখা গিয়েছিল যে এই দম্পতি ২০১২ সাল থেকে আলাদা থাকছিলেন এবং তারপর থেকে এই দুজনের মধ্যে কোনওপ্রকার সহবাস হয় নি।

bonding with your mother-in-law

পারিবারিক আদালতের প্রধান বিচারক কে ভাগ্য তাঁদের চার বছরের বিয়ে ভেঙে দেওয়ার জন্য পুত্রবধূর দাখিল করা আবেদনটি মঞ্জুর করেন এবং তাঁর স্বামীকে ৪.৮৫ কোটি টাকা খোরপোষ হিসেবে দেবার নির্দেশ দেন।

বিচারক এটিও উল্লেখ করেন যে যদি মামলা করার দুবছর আগে থেকে ত্যাগ করা হয়ে থাকে তাহলে হিন্দু বিবাহ আইন, ১৬৫৫ এর ধারা ১৩(১), ৯(বি) অনুযায়ী আবেদনকারী বিবাহবিচ্ছেদ পাবার অধিকারী।

একথা দেবানন্দের মা প্রকাশ করেন যে এই মহিলার সঙ্গে আইনসঙ্গতভাবে বিয়ের পরও তাঁর ছেলে গোপনে অন্য একটি মহিলাকে বিয়ে করে এবং তাদের একটি সন্তানও আছে।

শুধু তাই নয়, দেবানন্দের মা আদালতকে আরও জানান যে তার বেশ কয়েক একর জমি আছে, দামী দামী গাড়ী আছে, খনির ব্যবসা আছে, এবং প্রচুর টাকা সে উপার্জন করে। সাক্ষ্য দেবার সময় তিনি আরও জানান যে সে পরিবারের ইচ্ছের বিরুদ্ধে অন্য এক মহিলাকে বিয়েও করেছে।

আবেদনকারী ২২ শে মে, ২০১১ সালে শ্রী আর. বীরামনি স্টেডিয়াম, ইলকাল, হুনগুন্ড তালুক, জেলা - বাগালকোটে দেবানন্দকে, যে আবার সম্পর্কে তাঁর মামাও, বিয়ে করেছিলেন।

শ্বাশুড়ির সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা

অনেক সময় শ্বাশুড়ির সাথে সুসম্পর্ক স্থাপন করা কঠিন বলে মনে হতে পারে, কিন্তু সুনাম অর্জন করার অনেক উপায় আছে।

১।  তাঁর সাথে কথা বলুন : তাঁর যৌবনকালের কাহিনিগুলি জিজ্ঞাসা করুন আর জানতে চান যে কিভাবে তিনি তাঁর সন্তানদের প্রতিপালন করেছিলেন। এভাবে শ্বাশুড়ির সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপন করা যেতে পারে, সেই সঙ্গে আপনি তাঁর ব্যক্তিত্বের গভীরে প্রবেশ করতে পারবেন যার দ্বারা অনায়াসে সম্পর্কের শীতলতা ভেঙে ফেলা যাবে।

২।  একসাথে রান্না করুন : সব মায়েরই গর্ব করার মতো একটি বিশেষ রন্ধন প্রণালী থাকে, এবং আপনার শ্বাশুড়িও এর ব্যতিক্রম নন। তাছাড়া, একসাথে রান্না করা সুসম্পর্ক স্থাপন করার একটা দারুণ উপায়।

৩।  তাঁর প্রতি ভালোবাসা দেখান : শুধুমাত্র তাঁর দিকে হাসিমুখে তাকানো বা কোনও সাহায্য দরকার কিনা জিজ্ঞাসা করা -- এগুলি খুবই সামান্য কাজ, কিন্তু শুধু এর দ্বারাই আপনার শ্বাশুড়ি ভাববেন যে আপনি তাঁর প্রতি যত্নশীল।