ভোগ সৌন্দর্য পুরষ্কার : বচ্চন বধুরা এবং মেয়েরা তাঁদের সেরা ফ্যাশনেবল পোশাকে বেরিয়ে এলেন

lead image

এবার যে শুধু পুত্রবধূ ঐশ্বর্য অপরিসীম দারুণ স্টাইলিশ রূপে আবির্ভূতা হলেন তাই নয়, সেই একই যৌন আবেদনে ভরপুর স্থানটি ভাগ করে নিলেন বচ্চনের মেয়ে শ্বেতা নন্দা তাঁর কন্যা নব্যা নাভেলিকে সঙ্গে নিয়ে।

বচ্চনেরা আর একবার দেখিয়ে দিলেন যে আসলে তাঁরাই বলিউডের প্রথম পরিবার।  মনে হচ্ছে, তাঁদের সাম্রাজ্য বলিউডের ব্লকবাস্টার অতিক্রম করে বহুদূর প্রসারিত।

গত রাতে মুম্বাইতে ভোগ সৌন্দর্য পুরষ্কারে বচ্চন পরিবারের মহলাবর্গ দেখিয়ে দিলেন যে, ফ্যাশন এবং শৈলীর ক্ষেত্রেও তাঁরা রয়েছেন প্রথম সারিতে।

এবার যে শুধু পুত্রবধূ ঐশ্বর্য অপরিসীম দারুণ স্টাইলিশ রূপে আবির্ভূতা হলেন তাই নয়, সেই একই যৌন আবেদনে ভরপুর স্থানটি ভাগ করে নিলেন বচ্চনের মেয়ে শ্বেতা নন্দা তাঁর কন্যা নব্যা নাভেলিকে সঙ্গে নিয়ে।  প্রবীনতমা বচ্চন বধূ, জয়া বচ্চনও এই অনুষ্ঠানে তাঁর বয়স্কাসুলভ মানানসই শৈলীর অনায়াস পরিধানে উপস্থিত ছিলেন।

বিশেষতঃ, লক্ষ্য করার এটাই যে বচ্চন মহিলাদের তিনটি প্রজন্ম - মা জয়া, কন্যা শ্বেতা এবং নাতনি নব্যা নাভেলি এই মাসে ভারতের ভোগ পত্রিকার পারিবারিক সংখ্যার প্রচ্ছদপটে জায়গা করে নিয়েছেন।

বধূ, কন্যা এবং প্রপৌত্রী

 

#AishwaryaRaiBachchan arrives in a black ruffled number by @nedrettaciroglu at #VogueBeautyAwards2017 #VBAxTrends

A post shared by VOGUE India (@vogueindia) on

ঐশ্বর্য, যিনি বিদেশের লাল কার্পেট ইভেন্টে সন্দেহাতীতভাবে ভারতের সর্বশ্রেষ্ঠ সেলিব্রিটি, তিনি এখন আনুষ্ঠানিক পরিচ্ছদের শিল্প-সুষমা দারুণ আয়ত্ত করেছেন। তিনি ইস্তানবুলের ডিজাইনার নেড্রেট টাকিরাগ্লুর  একটি ঝিলমিলে কালো রঙের খোলা-কাঁধ গাউন পরে চমকপ্রদ প্রবেশ করলেন।

তার পরিপাটি লাল ঠোঁট এবং তার চুলের সূক্ষ্ম ঝলকানির খেলা, সেই সন্ধ্যা্র তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্য যথেষ্ট ছিল। অ্যাইশ তার সাজ সম্পূর্ণ করেন কালো পোশাকের সঙ্গে লাল হাই-হীল পাম্পস্যু পরেছিলেন যা কিনা তাঁর   বেশভূষায় একটা নাটকীয়তা এনে দিয়েছিল।

অ্যাইশ যদি মাথা ঘুরিয়ে দিয়ে থাকেন, ওই অনুষ্ঠানে মাথা ঘোরাবার জন্য আরও বচ্চনেরা ছিলেন।  অ্যাইশ এর ননদ এবং পরিবারের জ্যেষ্ঠা কন্যা শ্বেতা বচনকেও খোলা কাঁধ হালকা হলুদ রঙের গাউনে   সমান সুন্দর লাগছিল।  মোনোটোন গাউনের বো-টাই ডিজাইনে তাঁকে চরম সুন্দরী ও যৌন আবেদনময়ী লাগছিল।

নন্দা তাঁর চুলগুলি দিয়ে একটি সাধারণ খোঁপা বেঁধেছিলেন।  যদি এই দুই স্টাইলিশ বচ্চনের আউটিং আপনার যথেষ্ট না মনে হয়, তাহলে বচ্চন ভান্ডারে আরও আছে!  বচ্চন নাতনি নব্যা নাভেলি তাঁর খুবই বিরল আবির্ভাব গুলির মাধ্যে একটি সেদিন হয়েছিল, সুন্দর একটি চকচকে নরম গাউন পরে।

সুবিন্যস্ত ঢেউ খেলানো খোলা চুলে তাঁকে মনে হচ্ছিল যেন এক কিন্নরী।  মা জয়া বচ্চনকে দেখা গেল শান্ত পাঁশুটে সাদা রঙের চিকনের কাজ করা ঢোলা কামিজে। ঘটনাচক্রে, স্বয়ং বিগ-বি'র উপস্থিতিতে এই ত্রয়ী একেবারে নিখুঁত ছবি তোলার মুহূর্ত, যদিও এই অনুষ্ঠানে বধূমাতা ঐশ্বর্যও উপস্থিত হয়েছিলেন, তিনি তাঁর প্রিয় বন্ধু ও মেকআপ এক্সপারট মিকি কন্ট্রাকটর সহ দেরীতে এসেছিলেন।  অন্যান্য বচ্চনেরা খানিক আগে ফিরেছিলেন আর অ্যাইশ কিছুটা বেশী সময় ছিলেন।

শৈলী-সম্পন্ন পরিবার

বচ্চন পরিবার মঞ্চের স্পটলাইটের নীচে আজ নোতুন করে আসছেন না, তবুও আর একবার দেখা গেল যে পুরো পরিবারটি ভিড় আকর্ষণকারী।

বিগ বি,  ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর মর্যাদার জন্য যেখানে যান, সেখানেই সবার মনোযোগ আকর্ষণ করেন।  এই সময়, যখন বলিউডের অন্যান্য তারকা-সন্তান যেমন, সারা আলি খান এবং ঝানভি কাপুর, তাঁদের বলিউডি উচ্চাশার কারণে সংবাদে আসছেন, তখন, কাজেকাজেই সবার চোখ ছিল নব্যা নাভেলির ওপর।

 

Wow ? #navyananda

A post shared by ♡⛱ (@bollyteens) on

তার বড় হয়ে ওঠার পথে নাভেলি নিশ্চয়ই তাঁদের জীবনে সংবাদমাধ্যমের যখন তখন ঢুঁ মারার ব্যাপারে যথেষ্ট সচেতন হয়ে গিয়েছিল, কারণ সেদিন ওদের অনবরত শাটার টেপার সামনে তিনি তাঁর অনায়াস স্টাইল বজায় রেখেছিলেন। প্রত্যেকে শুধু তাঁদের নিজের নিজের আলাদা শৈলীর কারণেই নয়, বরং তাঁদের বয়স এবং সামাজিক ভূমিকার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজগোজ বেছে নেবার জন্যই পরিবারটি উজ্জ্বল হয়ে উঠেছিল।

যেখানে অ্যাইশ তাঁর বিশ্বব্যাপী নিয়মিত রেড-কার্পেটে অভ্যর্থনা পাওয়া তারকা সুলভ আকর্ষণীয় উন্নত ফ্যাশনের সাজ পছন্দ করেছিলেন, শ্বেতার স্টাইল ছিল অনায়াস কিন্তু তাঁর উচ্চমানের সঙ্গে মানানসই প্রেয়সীসুলভ।  শ্বেতাও সাবধানে তার যুবতী মেয়ে, নব্যাকে এক চিত্তাকর্ষক ঝকমকে সুপরিকল্পিত কাটিং এর গাউন পরে পাদপ্রদীপের আলো উপভোগ করতে দিয়েছিলেন।

কিভাবে বচ্চনদের মত সাজপোষাক করবেন

ঠিক আছে, আমরা স্বীকার করি যে বচ্চনরা বিলাসিতা করার জন্য আশীর্বাদপুষ্ট এক স্টাইলিস্ট পরিবারগোষ্ঠী, যাঁরা তাঁদের মেজাজ এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী যদেচ্ছ সাজপোশাক বেছে নিতে পারেন কিন্তু

এটা কল্পনা করার জন্য কোনও আইনস্টাইন না হলেও চলবে যে আপনার বয়স ও অবস্থানের উপযুক্ত পোশাক পরা হচ্ছে একটা সামাজিক রীতি রেওয়াজ।

যখন আপনি সপরিবারে বাইরে কোথাও যাবেন তখন কেমন সাজপোশাক হওয়া উচিৎ, তার একটি নির্দেশিকা এখানে দেওয়া হল।

  • আপনার বয়স বিবেচনা করুন : নীতি মোতাবেক প্রথম নিয়ম এটাই যে যখন আপনি পরিবারের সাথে বাইরে যাবেন তখন বয়স অনুযায়ী পোশাক পরা উচিত।  যদিও আমরা রাশভারী প্রবীণার মতো শালীন পোশাক পরার উপদেশ দিচ্ছি না, কিন্তু যদি আপনি বড় বড় ছেলেমেয়ের মা হন তাহলে ছোটদের জন্য যদি ধারালো, চটকদার ফ্যাশনের পোশাক পছন্দ করেন তো ভাল হয়।  
  • অংশ অনুযায়ী সাজুন :  অনুষ্ঠানটি কি এবং তার আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু কে সেটি বিবেচনা করে সাজগোজ করা উচিৎ।  উদাহরণস্বরূপ, যদি কারো জন্মদিন হয় তবে যার জন্মদিন সেই মেয়েটিরই তার অংশ দেখানোর জন্য উপযুক্ত। আপনার কিশোরীর জন্মদিনের পার্টিতে আপাদমস্তক সেজে এক গা গয়না পরলে   (অবশ্যই যদি না, উপলক্ষটি ৭০ বর্ষপূর্তির হয়) চটকদার মনে হয়, ভাল দেখায় না।
  • সংযম করুন : কখনও কখনও একটি সামান্য সাজ বিরাট ফ্যাশনের চিৎকৃত প্রদর্শনীর চাইতে ভাল দেখায়। আপনি যদি লক্ষ্য করেন, বচ্চন পরিবারের ছবিতে,  শ্বেতা একটি সংযমী কিন্তু উত্কৃষ্ট শৈলী বেছে নিয়েছেন।  যদি তিনিও বিগ লিপ এবং ঢাউস গাউন বেছে নিতেন হয়তো মনে হত যে পরিবারে একজনে চেয়ে বেশী তারকা অভিনেত্রী আছে।  অতএব বাড়াবাড়ি না করে সচেতন হয়ে আপনার পোশাক চয়ন করুন।