বিষাক্ত সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৮ টি বোকা বোকা কারণ

কোনও বিষাক্ত সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার সপক্ষে যে কোনও যৌক্তিকতা যতই যুক্তিসঙ্গত মনে হোক না কেন, তবুও তা সমস্যাসঙ্কুল হয়। এখানে তাদের মধ্যে ৮ টি দেওয়া হল।

কারো সাথে আপনার জীবন ভাগ করে নেওয়া একটি সহজ সিদ্ধান্ত নয়। জীবনের চ্যালেঞ্জগুলির সম্মুখীন হবার পরও একসঙ্গে থাকা আরো কঠিন। এর মধ্যে কিছু কিছু শুরু হয় এই 'বিষাক্ত সম্পর্ক' শব্দ থেকে।

সব কষ্ট, নাটকীয়তা এবং যৌথ অভিজ্ঞতা চলাকালীন একটি সম্পর্ক অবমাননাকর বা বিষাক্ত হয়ে গেছে কিনা তা বুঝতে পারা কঠিন হতে পারে। এমনকি অত্যন্ত স্থির মস্তিষ্কের মানুষেরও বিষাক্ত সম্পর্ক বুঝতে বেগ পেতে হয়।

কখন কোন সম্পর্ক "বিষাক্ত" হয়ে যায়?

প্রথম প্রথম এটা আপনার মনে হওয়ার চেয়ে বেশী সুস্পষ্ট হতে পারে। আপনার সঙ্গী যদি অবমাননাকারী হয় বা ওর জন্য আপনার নিজেকে খেলো মনে হয়, তাহলে এটা নিশ্চিত যে আপনার এই অভিমুখে যাত্রা শুরু হয়েছে।

একটি বিষাক্ত সম্পর্ক নাটকীয়তা এবং অন্যান্য আচরণের সাথে আসে যা আপনাকে পরিপূর্ণতার বোধ থেকে বঞ্চিত করে। এটি আপনার ব্যক্তসত্বার বিকাশেও বাধা দেয়।

toxic relationship

মোদ্দা কথা হল : বিষাক্ত সম্পর্ক আপনাকে নিরাপদ এবং সম্মানিত বোধ করতে দেয় না।

একজন বহিরাগতের দৃষ্টিকোণ থেকে, বিষাক্ত সম্পর্ক ছেড়ে বেরিয়ে আসা খুবই সহজ বলে মনে হতে পারে। কিন্তু যাঁরা এক মধ্যে আছেন, তাঁদের পক্ষে ব্যাপারটা অত সহজ হয় না।

সম্পর্কগুলি কাটানো সবসময় সহজ হয় না কেন তা ভালভাবে বুঝতে যাতে আমাদের সাহায্য হয়, তাই একটি বিষাক্ত সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার সপক্ষে পেশ করা কিছু বোকা বোকা কারণ এখানে দেওয়া হল।

"এই পর্যায়টা স্বাভাবিক।"

আপনার সঙ্গীর ত্রুটিবিচ্যুতিগুলিকে মেনে নেবার প্রবণতায়, আপনি ক্রমাগত অজুহাত দিতে পারেন, যা স্পষ্টতই এক ক্ষতিকারক মনোভাব।

উদাহরণস্বরূপ, যদিও আপনার স্বামী / স্ত্রী একটা মামুলি তর্কের সময় আঘাত দেবার জন্য অবমাননাকর ও বেদনাদায়ক শব্দগুলো ছুঁড়ে দেয়, তবুও আপনি এটা ভেবে নিজের উপর দোষ চাপিয়ে নিতে পারেন যে, তার আচরণ গ্রহণযোগ্য, এমনটা আপনার দোষেই হচ্ছে।

"কোনও না কোনও সময় সবার জীবনেই এরকম ঘটে।"

যদিও একে অপরকে ভাল দেখতে চেষ্টা করা ভাল, তবে একটি পরিস্থিতির উভয় দিক দেখার চেষ্টা করা আপনার অবশ্যই উচিত।

হ্যাঁ, সমস্ত দম্পতিদের জীবনেই রুক্ষ সময় আসে। কিন্তু যদি এই অসুবিধাগুলির বেশিরভাগই আপনার সঙ্গীর আচরণের জন্যই হচ্ছে, তবে আপনাদের সম্পর্ক খারাপ থেকে আরো খারাপ হয়ে যাচ্ছে কিনা সেটা বিবেচনা করে দেখতে পারেন।

"আমরা কতকিছু পেয়েছি"।

কারও মাধ্যমে অনেক কিছু অর্জন করা হয়ে গেলে আপনাকে সহ-নির্ভরতার এমন একটি ধারণা দিতে পারে যাতে আপনি দেখেও দেখেন না -- এমনকি উপেক্ষা করেন -- সঙ্গীর বিষাক্ত আচরণ।

“আমারও দোষ আছে”

নিজের ত্রুটি স্বীকার করে নেওয়া সুস্থ মানসিকতা, কিন্তু সবসময় এটি বুদ্ধিমত্তা নয়। আপনি আপনার নিজের ভুল করছেন, কিন্তু এতে আপনার সঙ্গীর বিষাক্ত আচরণ বাতিল হয় না বা ন্যায্যতা পায় না।

"তার শুধু একটা খারাপ সময় যাচ্ছে।"

সবকিছু ঠিকঠাক চলছে না বলেই কি আপনার সঙ্গী আক্রমণাত্মক?

আমাদের সবারই খারাপ দিন আসে, কিন্তু যখনই আপনি আপনার সঙ্গীকে আপনাকে দোষারোপ করতে বা আপনাকে আঘাত দিয়ে কথা বলতে দিচ্ছেন, তখনই আপনি একটি বিপজ্জনক প্রবণতাকে প্রতিপালন করছেন  যেখানে সম্মান না দেওয়াটাই প্রথাসিদ্ধ হয়ে উঠছে।

"আমি তার পরিবারের সাথে এত জড়িয়ে আছি।"

সঙ্গীর পরিবারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা একটি খারাপ সম্পর্ক সহ্য করে যাবার পক্ষে যথেষ্ট বৈধ কারণ নয়।

এটা শুধু মূর্খতা নয়, এটা শ্বশুরবাড়ির লোকেদের প্রতি অন্যায়ও, যারা আপনাকে স্নেহ করেন এবং নিজের

বলে মনে করেন।

"আমাদের একে অপরকে দরকার"

বাধ্যবাধকতা কোনও একটি সম্পর্কের মধ্যে থেকে যাবার জন্য চালিকাশক্তি হওয়া উচিত নয়, যে সম্পর্ক আর কাজ করছে না।

যদি আপনার অর্থ এবং সম্পদ একসঙ্গে থাকে তাহলে সবকিছু আবার থেকে শুরু করতে হবে ভেবে সম্পর্ক ভেঙে মুক্ত হওয়া আরো কঠিন হতে পারে।

আপনি একসঙ্গে যে জীবন গড়ে তুলেছেন, তা ছেড়ে আসা সহজ নয়।

"এটা খুব জটিল।"

বিষাক্ত সম্পর্কের সাথে বসবাস করাকে যুক্তিযুক্ত করার জন্য এটি একটি সহজ অজুহাত।

যারা আপনার সম্পর্কে চিন্তাশীল, তাদের কাছে এই কথাটা শুধু যে উড়িয়ে দেবার যোগ্য তাই নয়, এর মানে হল যে আপনি যে কোন সমস্যা, যাতে কিছু করা দরকার, তা এড়িয়ে যাচ্ছেন কারণ, সেটি অত্যন্ত জটিল।

সম্পর্ক ভেঙ্গে যাক, সেটা কেউই চায় না, বিশেষত যদি তাতে বাচ্চারা জড়িত থাকে। যদি আপনার সমস্যা থাকে, তার মানে এই নয় যে আপনার সম্পর্ক বিষাক্ত।

আপনার সাহায্যকারীদের কাছে পৌঁছানোর জন্য নিশ্চিতভাবে সম্ভাব্য সব পথ বিবেচনা করে এবং একসঙ্গে বসে একটা সমাধান খোঁজার জন্য যা যা করণীয়, সবই করবেন।

যদিও প্রায়ই সঠিক সিদ্ধান্ত হয়, তবুও একটি বিষাক্ত সম্পর্ক ছেড়ে দেওয়াকে হালকাভাবে নেওয়া উচত নয় কারণ, এটি যে শুধু আপনারই উপর প্রভাব ফেলে তা নয়, যারা আপনাকে ভালোবাসে তারাও যথেষ্ট প্রভাবিত হয়।

 

উৎস : Psychology Today, Time.com, The Huffington Post

theAsianParent Singapore এর অনুমতিক্রমে পুনঃপ্রকাশিত