দেখুন কারিশ্মা কাপুরের মেয়ে সামায়রা প্রায় তার সমান লম্বা হয়েছে!

দেখুন কারিশ্মা কাপুরের মেয়ে সামায়রা প্রায় তার সমান লম্বা হয়েছে!

বলিউডে একজন সুন্দরী তৈরি হচ্ছে এবং সে হল, কারিশ্মা কাপুরের মেয়ে সামাইরা কাপুর। কারিশ্মা’র মেয়ের বয়স ১২, এবং সে এক ইতিমধ্যে এক কমনীয় তরুণীতে পরিণত হয়েছে।

এক সাম্প্রতিক ভ্রমনে, কারিশ্মাকে দেখা যায় তার দুই সন্তানের সাথে – মেয়ে সামাইরা এবং ছেলে কিয়ান, এবং সামায়রা প্রায় তার মায়ের সমান লম্বা হয়ে গেছে।

কারিশ্মাকে প্রায়ই দেখা যায় তার বাচ্চাদের সাথে, এবং তিনি প্রায় তাদের ছবি শেয়ার করেন। তিনি তাদের সাথে সময় কাটাতে ভালবাসেন, দেখে মনে হয় তিনি তার মায়ের রূপে বেশ সফল।

সম্প্রতি তিনি দুই ছেলে মেয়েকে নিয়ে লন্ডনে জাসটিন বাইবারের কনসার্টে যান। সামায়রার সঙ্গীত ও নৃত্যের শখ, এই কথা মাথায় রেখে কারিশ্মা এই ভ্রমন প্ল্যান করেন।

পূর্বে কারিশ্মা নিজেই এ কথা স্বীকার করেছেন যে সামায়রার সঙ্গীতের শখ এবং সে নাচতে ভালবাসে।

সামায়রা বড় হয়ে কি করবে এ ব্যাপারে মন্তব্য করার জন্য যদিও এখন খুবই শীঘ্র কিন্তু এটা বলা বাহুল্য যে এই মেয়ে প্রতিভা এতিমধ্যে দর্শিয়েছে। কিছু বছর আগে সামায়রা এক সর্ট ফিল্ম বানিয়েছিল, যার নাম – “বি হ্যাপি” এবং এই সর্ট ফিল্ম হায়দেরাবাদের ইন্টারন্যাশানাল চিলড্রেন ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এ দেখান হয়।

যদিও সময় বলবে যে এই সুন্দর মেয়েটি ক্যামেরার সামনের ক্যারিয়ার বেঁছে নেবে না ক্যামেরার পেছনে থাকবে, এখন তাকে বড় হতে দেখা মোহনীয়!

বয়ঃসন্ধি কালের বৃদ্ধির ব্যাপারে যা জানা দরকার

শিশুরা যখন কৈশোরের দিকে অগ্রসর হয় প্রায়ই তাদের মধ্যে এক হঠাৎ বৃদ্ধি দেখা যায়। অধিকাংশ সময় তাড়া হঠাৎ করে লম্বা হয়ে ওঠে। এক কিশর দু-এক মাশে কয়েক ইঞ্চি বেড়ে উঠতে পারে। কিন্তু এই হঠাৎ বেড়ে ওঠা দীর্ঘকাল থাকে না, হয়ত কিছু মাস তার পর তাদের বৃদ্ধি স্বাভাবিক হয়ে যায়।

এই শারীরিক বিকাশের সাথে তাদের মানসিক বিকাশ ও পাল্লা দিয়ে বাড়ে। এই সময়, কিশোররা তাদের শখ এবং পরবর্তী কালে তাড়া কি পেশা বেঁছে নেবে সেই ব্যাপারে ভাবা শুরু করে। এই সময় তাদের কল্পনা কে উৎসাহিত করা উচিত এবং তাদের ভবিষ্যতের ব্যাপারে ভাবতে দেওয়া উচিত।

এই সময় তারা স্বাধীন হতে চায়। তাদের নিজের কাজ নিজের মত করে করতে দেওয়া এক ভাল অভ্যাসে পরিণত হবে, কিন্তু নিশ্চয় আপনার চোখ রাখা দরকার। এই বয়সে আপনার সন্তাঙ্কে তাদের নিজেদের দিন প্ল্যান করতে দিন এবং তাদের সাথে দৈনন্দিন জিবনের ব্যাপারে আলোচনা করুন।

Any views or opinions expressed in this article are personal and belong solely to the author; and do not represent those of theAsianparent or its clients.

Written by

debolina