গর্ভবতী মায়েদের জন্য নিরাপদে ঘুমানোর ভঙ্গিমা

lead image

আপনার গর্ভের বেড়ে ওঠা শিশুটির ধাক্কার জন্য কি আপনি সারারাত বিছানায় এপাশ ওপাশ করে একটি আরামদায়ক অবস্থান খোঁজেন? এখানে কিছু অনুমোদিত ঘুমানোর ভঙ্গি যা গর্ভবতী মায়ের জন্য নিরাপদ, এবং সেইসঙ্গে কিছু নির্দিষ্ট ভঙ্গি যা আপনাকে এড়াতে হবে, এখানে দেওয়া হল।

যদি আপনি সবচেয়ে অভিজ্ঞ মা-বাবাকে জিজ্ঞাসা করেন যে, যারা প্রথম শিশুর মা-বাবা হতে চলেছে, তাদের জন্য ওনাদের পরামর্শ কি, তাহলে সম্ভবত ওনারা বলবেন, "যতটা পারেন ঘুমিয়ে নিন!"

আপনি হয়তো জানেন না যে ওই সব নিদ্রাবিহীন রাত আসলে ছোট্টটির আগমনের আগেই শুরু হয় যখন আপনার প্রিয় বাচ্চাটির ধাক্কা দেওয়া প্রতি সপ্তাহে বৃদ্ধি পায়, আর ঘুমানোর সময় কোন অবস্থানে শুলে আরামদায়ক হবে, তা ভেবে কুলকিনারা পাওয়া যায় না।

আপনি কি জানেন যে গর্ভবতী মায়েদের জন্য নিরাপদে ঘুমানোর জন্য কিছু অনুমোদিত ঘুমানোর ভঙ্গি আছে আর সেইসঙ্গে কিছু নির্দিষ্ট ভঙ্গি যা আপনাকে এড়াতে হবে?

আরামদায়ক হওয়া এত কঠিন কেন?

সারারাত বিছানায় এপাশ ওপাশ করে ঘুমিয়ে পড়ার জন্য একটি আরামদায়ক অবস্থান খোঁজার চেষ্টা করার পরে আপনি নিশ্চয়ই অবাক হয়ে ভাবেন যে এতদিন যা সহজ ছিল তার জন্য হঠাৎ এত লড়তে হচ্ছে কেন।

আপনার অসুবিধা বিভিন্ন কারণে হতে পারে যেমন :

আপনার শিশুর ধাক্কা দেবার মাত্রা

আপনার গর্ভাবস্থার অগ্রগতি হওয়ার সাথে সাথে, আপনার শিশুটি একটি তিলের সাইজ থেকে একটি একটি তরমুজের সাইজে বড় হয়! তাই এটি আশ্চর্যের বিষয় নয় যে আপনি ঘুমিয়ে পড়তে কিছু কিছু অসুবিধার সম্মুখীন হবেন।

পিঠে ব্যাথা

sleeping positions, pregnant, mother, mum, pregnancy, maternity

এটি একটি সাধারণ সমস্যা, বহু গর্ভবতী মায়েরা এতে ভোগেন, এই ব্যাথা মামুলি থেকে শুরু করে প্রচণ্ড হতে পারে এবং গর্ভাবস্থার যে কোনও সময় এটা হতে পারে।

অম্বল

গর্ভাবস্থায় আপনার হরমোনগুলি আপনার পেশীগুলিকে আরাম করতে দেয় যার মধ্যে আপনার পেট ও হজমে সহায়ক পেশীগুলিও আছে, তাই হজমকারক অম্লগুলি হয়তো আপনার খাদ্যনালীতে চলে যায়, যার ফলে  আপনার অম্বল ও প্রতিপ্রবাহ হতে পারে।

নিঃশ্বাসের দুর্বলতা

আপনার বাচ্চা যত বড় হয়, ততই আপনার ভেতরের জায়গা দখল করে তাই প্রতিটি নিঃশ্বাস গ্রহণের সঙ্গে আপনার ফুসফুসের প্রসারণ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

বাঁচাও, আমাকে বাঁচাও!

এইসব নিদ্রাবিহীণ রাতের পর আপনি হয়তো ঘুমাবার জন্য একটা স্বচ্ছন্দ অবস্থান পেতে সাহায্যের জন্য পরিত্রাহি ডাক পাড়ছেন!

কিন্তু বাঁচবার একমাত্র উপায় হল, পাশ ফিরে ঘুমানো, যেটি হচ্ছে গর্ভবতী মহিলাদের জন্য অনুমোদিত নিরাপদতম অবস্থান কারণ, এভাবে শুলেই বেড়ে চলা শিশুর ওজনজনিত ধাক্কার হাত থেকে আরাম ও পরিত্রাণ পাওয়া যায়।

যদিও যে কোনও পাশ ফিরে শোওয়াই নিরাপদ, কিন্তু সবচেয়ে নিরাপদ হলও বাঁ পাশের ওপর শোওয়া কারণ, এতে আপনার জরায়ু অমরা এবং ছোট্ট শিশুটিকে বাড়তি রক্ত ও পুষ্টি পেতে সাহায্য হবে।

সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের অনিয়মিত নিদ্রা বিভাগের নির্দেশক ডঃ অং থাং হাও এবং জাতীয় বিস্ববিদ্যালয়ের শ্বসন ও ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিনের পরামরশদাতা ডঃ চুয়া আই পিং এ বিষয়ে একমত যে গর্ভবতী মহিলাদের বাঁ পাশ ফিরে শোওয়া বেশী ভাল।

ঘুমানোর যে অবস্থানগুলি এড়িয়ে চলা উচিত

চিত হয়ে

আপনি যদি চিত হয়ে ঘুমান তাহলে হয়তো আপনার নিঃশ্বাস নিতে বেশী কষ্ট হবে কারণ, গর্ভ ধারণ করা পেট আপনার অন্ত্রকে পেষণ করবে আর তাই আপনার পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ডঃ অং এবং ডঃ চুয়া গর্ভবতী মহিলাদের (বিশেষ করে যারা গর্ভাবস্থার ষষ্ঠ মাসে পা দিতে চলেছে) পিঠের ওপর না শুতে পরামর্শ দিয়েছেন কারণ, ভারী জরায়ুটি প্রধান রক্র-সংবহনকারী নালিকাগুলিতে চাপ দিয়ে রক্ত সংবহন বিঘ্নিত করতে পারে।

উপুড় হয়ে

মুখ নীচের দিকে করে পেটের ভরে শুলে আপনি যে শুধু বড় হতে থাকা স্তন দুটিতে চাপ দেবেন তাই নয়, আপনার প্রিয় শিশুটিকেও চাপে রাখবেন।

তান তক সেং হাসপাতালের শ্রীমতী এঙ্গো যুএতিং বলেন যে এইভাবে ঘুমালে আপনার মেরুদণ্ডের স্থিতিস্থাপকতা প্রভাবিত হতে পারে এবং ঘাড়ে ব্যাথা হতে পারে।

ঘুমানোর অবস্থান পরিবর্তন ছাড়া রাত্রে সুনিদ্রা ও বিশ্রামের জন্য আপনি আর কি কি করতে পারেন তা জানার জন্য পরবর্তী পৃষ্ঠায় পড়ে চলুন।

বাড়তি বালিশ নিন

বিনা খরচে এবং সহজে ঘুমাবার সময় আরও সুবিধা-স্বাচ্ছন্দ্য পেতে হলে একটি অতিরিক্ত বালিশ ব্যবহার করুন। এইভাবে :

  • আপনার পেটের নীচে বা দুই হাঁটুর মাঝে একটি বালিশ ঠেকনা দিলে পেটে ও পিঠে বাড়তি অবলম্বন পাবেন।
  • আপনার শরীরের পাশে একটি বালিশ ঠেকনা দিন, যাতে পাশ ফিরে শোওয়া বজায় থাকে এবং আপনাকে পেট বা পিঠের দিকে গড়িয়ে যেতে না দেয়।
  • শরীরের পাশে নীচের দিকে একটি বালিশ রাখুন যাতে আপনার বুক ওপরে থাকে আর শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট না হয়।
  • যদি আপনি অম্বলে ভুগছেন, তাহলে কয়েকটি অতিরিক্ত বালিশ নিয়ে মাথাতে আরও ঠেকনা দিন যা অম্লকে নীচের দিকে পাকস্থলিতে রাখতে সাহায্য করবে।
  • আপনার মোড়া হাঁটুর মাঝে একটি পাশবালিশ রেখে জড়িয়ে ধরুন যাতে অতিরিক্ত অবলম্বন পেতে পারেন।

গর্ভাবস্থা বালিশ

আপনি একটি গর্ভাবস্থার বালিশ পেতে পারেন যা বিশেষভাবে গর্ভবতী মায়েদের বাড়তি আরাম ও স্বাচ্ছ্যন্দ দেবার জন্য বিশেষভাবে নির্মিত, যাতে আপনি নির্বিঘ্নে ঘুমাতে পারন।

sleeping positions, pregnancy pillow, mum, mother, comfortable, maternity

এর অনন্য আকৃতি আপনার পিঠে, পেটে ও হাঁটুতে সুন্দরভাবে ঠেকনা দেয় এবং সাধারণত খোলের সঙ্গেই আসে যা অনায়াসে খুলে নিয়ে মেশিনে ধোওয়া যায় তাছাড়া আপনার বিছানার চাদর বা শোবার ঘরের সজ্জার সঙ্গে মানানসই পছপন্দ করতেও পারেন।

সুবিধা : অনন্য আকৃতির কারণে সর্বোত্তম সহায়তা প্রদান করে আবার এটি স্তন্যদান বালিশ হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

অসুবিধা : ব্যয়বহুল; বিশাল তাই বিছানায় অনেক জায়গা লাগে।

জনপ্রিয় পছন্দ : ল্যাজদা থেকে ইউ-আকৃতির ৩-ডি গর্ভাবস্থা এবং মাতৃত্ব বালিশ ($85.88), অ্যাগাপে বেবিজ থেকে থেরালিন মাতৃত্ব এবং নার্সিং বালিশ ($116.10), পাপসিক স্টুডিও থেকে রেড ক্যাসেল বিগ ফ্লপি মাতৃত্ব বালিশ ($151.30), মাদারকেয়ার থেকে  ড্রিমগেনিল গর্ভাবস্থা এবং নার্সিং সাপোর্ট বালিশ ($158)।

ভাল ঘুমানোতে সাহায্য করতে টিপস

আপনি যদি এখনও আপনার গর্ভাবস্থার সময় সঠিক ঘুমের জন্য চিন্তিত, এখানে সুনিদ্রাতে সাহায্য করার জন্য আরো কয়েকটি টিপস :

  • ঘুমাবার নতুন অবস্থান চেষ্টা করুন
  • বিছানায় যাবার আগে আনন্দের জন্য একটি সুন্দর গরম স্নান করুন
  • আপনার সঙ্গীকে একটি আরানদায়ক ম্যাসেজ করতে বলুন
  • কামরাটিতে ঘুমানোর জন্য আরামদায়ক পরিবেশ রাখুন
  • কামরাটির তাপমান যেন আরামদায়ক থাকে, ঘেমে যাবার মতো গরম নয় আবার খুব বেশী ঠান্ডা নয়
  • কিছু মনোরম সুর বা প্রাকৃতিক শব্দ বাজিয়ে রাখুন, যা আপনাকে ঘুম পাড়াবে
  • উপাসনা বা শিথিলকারী চেষ্টা করতে পারেন
  • একটি বই পড়ুন
  • হালকা অথচ স্বাস্থ্যকর স্ন্যাক্স খান
  • এক গ্লাস গরম দুধ খান

আপনার গর্ভবতী শরীরে এখন অনেক পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে এবং আপনার ছোট্ট শিশুটির আগমনের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছে, তাই আপনার স্বাভাবিক ঘুমের প্যাটার্ন ব্যাহত হতে পারে।

আশা করছি একবার আপনি আমাদের প্রস্তাবিত পরামর্শগুলি পরীক্ষা করবেন এবং নিরাপদ ঘুমানোর অবস্থানে থাকবেন এবং অবশেষে আপনি রাত্রে একটি ভালো ঘুম পাবেন।