কেরলের মহিলার অকাল প্রসব বেদনা শুরু হয় এবং মধ্য আকাশে শিশুর জন্ম দেয়!

ভাগ্যবান শিশুটি জেট এয়ারওয়েজের কাছ থেকে একটি বিশেষ উপহারও হস্তগত করেছে!

যখন বেশ গর্ভবতী জোসে দমন থেকে কোচি যাবার বিমানে উঠেছিলেন, তখন তিনি ঘুণাক্ষরেও জানেন না যে তাঁকে একজন মহিলার সবচেয়ে বড় ভয়ের সম্মুখীন হতে হবে!

জেট এয়ারওয়েজের উড়ান শুরু হতেই জোসে অকাল প্রসববেদনা অনুভব করতে শুরু করেন এবং কয়েক মিনিটের মধ্যে তিনি একটি সুস্থ শিশু প্রসব করেন, ১৬২ জন যাত্রীর উপস্থিতিতে।  

হ্যাঁ, বিশ্বাস করুন বা না আসলে সেটাই ঘটেছে।

জোসের কপাল ভাল, উড়ান সংখ্যা ৯ডাব্লিউ ৫৬৯ এর কর্মদক্ষ বিমান কর্মীবৃন্দ এবং একজন প্রশিক্ষিত চিকিৎসাকর্মী মিলে অবিলম্বে তাঁকে প্রসব করতে সাহায্য করেন।

মধ্য গগনে শিশুর জন্ম!

baby born

কোচি যাবার পথে দিক পরিবর্তন করে বিমানটি মুম্বাই এ জরুরী অবতরণ করে যাতে জোসে কে অবিলম্বে কোনও হাসপাতালে ভর্তি করা যায়।

জেট এয়ারওয়েজ এর বিবৃতিতে জানানো হয়, "আমাদের যাত্রী অতিথিটি ৩৫০০০ ফুট উচ্চতায় একটি শিশুর জন্ম দিয়েছে।  অবতরণের পর সঙ্গে সঙ্গে মা এবনফ শিশুকে মুম্বাই এর হলি স্পিরিট হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে এবং সেখানে তাঁরা সুস্থ আছেন।  জেট এয়ারওয়েজ যাত্রীর পরিবারকে খবর দিয়েছে যাঁরা কোচি থেকে রওনা দিয়েছেন।  জেট এয়ারওয়েজ বিমানে উপস্থিত চিকিৎসা কর্মী শ্রীমতী উইলসনকে তাঁর সাহায্যের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছে।"  

নবজাতকের জন্য বিশেষ উপহার

মুম্বাইয়ের জরুরী অবতরণের জন্য বিমানের উড়ান ৯০ মিনিট জন্য বিলম্বিত হলেও শিশুটিকে একটি বিশেষ উপহার দেওয়া হয়েছে। প্রাপ্ত সংবাদ অনুযায়ী, জেট এয়ারওয়েজ নবজাতককে সারাজীবনের জন্য বিনামূল্যে বিমানযাত্রার একটি পাস উপহার দিয়েছে কারন সে বিমানে জন্মগ্রহণ করা প্রথম শিশু।

"আমাদের বিমানে জন্মগ্রহণ করা  প্রথম শিশু হবার সুবাদে, জেট এয়ারওয়েজ নবজাতককে আজীবন বিনামূল্যে জেট এয়ারওয়েজে ভ্রমণের জন্য একটি পাস উপহার দিতে পেরে আনন্দিত," তাদের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গতঃ, হবু মায়েদের ব্যাপারে জেট এয়ারওয়েজের একটি  নীতি আছে যেখানে তারা সুস্পষ্টভাবে বর্ণনা করেছে যে কোনও গর্ভবতী মহিলা কিভাবে বিমান যাত্রা করতে পারে এবং তিনি যদি ৩২ সপ্তাহের বেশী গর্ভবতী হন, তাহলে কি কি নথিপত্র প্রয়োজন।

যদি আপনিও আপনার গর্ভাবস্থায় উড়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন (ইশা দেওল তার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেও উড়েছেন), তাহলে আপনার যা জানা দরকার তা এখানে দেওয়া হল।

গর্ভাবস্থায় বিমান যাত্রার আগে ৫ টি কথা মনে রাখতে হবে

baby born

  • বিমানযাত্রার অনুমতির জন্য আপনার ধাত্রী-স্ত্রীরোগ সম্বন্ধিত সবকিছু সঙ্গে রাখুন, বিশেষ করে যদি আপনি ২৭-২৮ সপ্তাহের গর্ভাবস্থা অতিক্রম করে থাকেন।  কারণ, ২৮ তম সপ্তাহের পরে, প্রসবের সম্ভাবনা বেশী থাকে এবং এক্ষেত্রে অধিকাংশ বিমান সংস্থা ডাক্তার থেকে একটি 'ফিট টু ফ্লাই' চিঠি দাবী করে।  
  • যদি আপনি ট্রাভেল এজেন্টের মাধ্যমে বুকিং করেন, তাহলে তাকে আপনার গর্ভাবস্থা এবং বর্তমান চিকিৎসার অবস্থা জানাতে ভুলবেন না।  এটি তাকে বিমান সংস্থাগুলি থেকে অনুমোদন পেতে সহায়তা করবে, অন্যথায় বিমানে ওঠার পরও আপনাকে নিয়ে যেতে অস্বীকার করতে পারে।
  • আপনি যদি অনলাইনে অন্তর্দেশীয় টিকিট বুকিং করছেন, তাহলে বিমান সংস্থার নিয়মাবলী পড়ে দেখুন। বেশিরভাগ বিমান সংস্থাগুলির নিয়মাবলীতে ডাক্তারের কাছ থেকে ক্লিয়ারেন্স চিঠির প্রয়োজনীয়তা উল্লিখিত থাকে।  আপনি সাথে কি বহন করতে পারেন এবং কি বিশেষ সহায়তা বা যত্ন পেতে পারেন, সে সম্বন্ধেও তাদের সীমাবদ্ধতা থাকতে পারে।
  • যদি আপনি অনলাইনে আন্তর্জাতিক টিকিট বুকিং করছেন, তবে ডাক্তারের চিঠিটি জমা দিতে ভুলবেন না। এছাড়াও, আপনার চূড়ান্ত গন্তব্যের পথে কোনও ট্রানজিট ফ্লাইট থাকলে, ট্রাভেল এজেন্টকে তা জানাতে ভুলবেন না। এইভাবে ট্রানজিট এয়ারলাইন আপনার পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত থাকবে এবং প্রয়োজন হলে সাহায্য করতে পারবে।
  • যদি আপনি কোনও প্যাকেজ ট্যুরে পরিবারের সাথে ভ্রমণ করছেন, তাহলে আপনার এজেন্ট, এয়ারলাইন এবং এমনকি ট্যুর অপারেটরকেও এ বিষয়ে জানিয়ে রাখবেন।

Source: theindusparent