কাজল বলেন, যে লক্ষণ তাঁকে বিবাহবিচ্ছেদ এর দিকে নিয়ে যেতে পারে, তাকে তিনি তাঁর বিয়ের রাতেই ছেড়ে এসেছেন!

lead image

বি-টাউনের ভঙ্গুর বিয়েগুলি প্রায় প্রতিদিনই খবরের শিরোনামে আসছে দেখে মনে হয় যে বিবাহ নামক প্রথাটির মাধুর্য বহু বিখ্যাত দম্পতিই হারিয়ে ফেলেছেন। যেখানে কেউ কেউ পরস্পরের প্রতি আর ভালবাসা অনুভব করতে পারছেন না সেখান অনেকে আবার এই সীমাহীন একঘেঁয়েমি আর সহ্য করতে প্রস্তুত নন।

যে কারণেই হোক, একের পর এক বহু দম্পতিই আলাদা হয়ে বলিউডে বিবাহ বিচ্ছেদ কে সাধারণ ব্যাপার করে তুলেছেন। অবশ্য বিবাহের শুচিতা সকলেই হারিয়ে ফেলেন নি।

১৮ বছরেরও আগে বিয়ে হওয়া কাজল এবং অজয় দেবগনের মতো অনেকেই আছেন যাঁরা জানেন যে কিভাবে ঠিকঠাক চালাতে হয়, এবং কোন কোন জিনিষগুলি স্বামী স্ত্রী কে সর্বদা বর্জন করতে হয়।

"আমরা সহিষ্ণুতা হারাচ্ছি"

src=https://bengali admin.theindusparent.com/wp content/uploads/sites/14/2017/06/ajay devgn feature.jpg কাজল বলেন, যে লক্ষণ তাঁকে বিবাহবিচ্ছেদ এর দিকে নিয়ে যেতে পারে, তাকে তিনি তাঁর বিয়ের রাতেই ছেড়ে এসেছেন!

একটি মনোরঞ্জন পত্রিকার সঙ্গে কথা বলার সময় কাজল তার সফল বিবাহিত জীবনের গোপন রহস্য প্রকাশ করেছেন। এমনকি কোন কোন আচরণ জীবনসঙ্গীর সঙ্গে কখনও করা উচিত নয়, সে ব্যাপারেও পরামর্শ দিয়েছেন এবং বলেছেন যে তিনি এবং অজয় এই ব্যাপারে সদাসর্বদা সতর্ক থাকেন।

"আমি মনে করি আমরা সহিষ্ণুতা হারাচ্ছি (না, এটা ওই 'অসহিষ্ণুতা' নিয়ে কোনও মন্তব্য নয়) এখানে কথাটা ধৈর্য হারানো সম্বন্ধে। আমরা শুধু সামান্য একটু দূর পর্যন্ত এগিয়ে গিয়ে মানুষকে একটা দ্বিতীয় সুযোগ দেবার ইচ্ছা হারিয়ে ফেলছি" তিনি সাফ বলেন।

এখন যে দম্পতিকে আগের চেয়েও ঘনিষ্ঠ মনে হয় তাঁরা ১৮ বছরেরও বেশি সময় ধরে সফল বিবাহিত জীবন কাটিয়েছেন। তাঁদের গোপন কথাটি সহজ - একে অন্যের কাজের বিচার না করা এবং প্রতিরোধী ব্যাক্তত্ব না থাকা।

অজয়ের 'শান্ত করার' একটা ক্ষমতা আছে

কাজল সম্প্রতি ব্যাক্ত করেছেন যে খ্যাতির শিখরে থেকে অজয়কে বিয়ে করার প্রথম কারণ ছিল যাতে সে তাঁকে শান্ত হতে সাহায্য করতে পারে।

"সেই সময়টাতে এরকম করা আমার সঠিক সিদ্ধান্ত ছিল। ইতিমধ্যে আমার আট-ন বছর কাজ করা হয়ে গিয়েছিল। সুতরাং, আমার কর্মক্ষেত্রে শান্ত হয়ে যাবার জন্য এবং এটি সহজভাবে নেবার জন্য আমি প্রস্তুত ছিলাম" ৪২ বছর বয়সের স্বীকারোক্তি।

"আমি বছরে চার থেকে পাঁচটি সিনেমা করছিলাম। আমি কেবল এটাই করতে চাইনি এবং কেবল ওই ভাবেই বাঁচতে চাইনি। এটাই আমার জীবনের উদ্দেশ্য ছিল না। তাই আমি ভেবছিলাম যে এবার আমি বিয়ে করব এবং বছরে একটি করে ফিল্ম করব। তাতে আমি আরও সুখী হবো এবং আরও নিশ্চিন্ত থাকব," তিনি ভোগ বিএফএফস এর শুটিং করার সময় বলেছেন।

src=https://bengali admin.theindusparent.com/wp content/uploads/sites/14/2017/06/kajol and ajay feature 3.jpg কাজল বলেন, যে লক্ষণ তাঁকে বিবাহবিচ্ছেদ এর দিকে নিয়ে যেতে পারে, তাকে তিনি তাঁর বিয়ের রাতেই ছেড়ে এসেছেন!

তদুপরি কাজল, অজয়কে এক ভাল পিতা নে করেন, এটাও তাদের কাছে রেখেছে। যে ভাবেই হোক না কেন, এই দুজনে প্রমাণ করেছেন যে তাদের অগ্রাধিকারগুলি সঠিকভাবে নির্বাচিত এবং তাঁরা আরও ক্ষমাশীল হতে ইচ্ছুক। এটি আবার আমাদেরকে এক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের মুখোমুখি করে - আপনি যদি আঘাত পান তখন ক্ষমাশীলতা আসবে কিভাব?

ঠিক আছে, যদি আপনি এই প্রশ্নটিও জিজ্ঞাসা করছেন, তাহলে জীবনসঙ্গীর অবাঞ্ছিত ব্যাবহার ক্ষমা করতে পারার জন্য তিনটি বাস্তবসম্মত উপায় আছে।

ক্ষমা করে আপনার বিবাহিত জীবনকে সুস্থ করার ৩ টি উপায়

এক পায়ে খাড়া হওয়া শুরু করুন:

আপনাকে হয়তো এক পায়ে খাড়া হয়ে কাজ করতে হয় না কিন্তু আপনার বিয়ে অনেকটা এরকমই। আপনার যা কিছু আছে, সবই যখন এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করেছেন তখন এটার সাফল্য সুনিশ্চিত করা দরকার। এবং এটি করার জন্য, অধিকাংশ সি ই ও যা করেন, জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলি রুপায়নের জন্য সময়সীমা নির্ধারণ করুন এবং তা যেন ফস্কে না যায় এটা সুনিশ্চিত করুন। এটি আপনাকে জানতে সাহায্য করবে যে আপনি আপনার জীবনসঙ্গী আপনার কাছ থেকে কী আশা করেন এবং কোন জায়গায় আপনি আরও উন্নতি করতে পারেন।

এটি কেবল দুবার ঘটে:

কুছ কুছ হোতা হ্যায় সিনেমায় কাজলের বিখ্যাত উক্তি, "একদিনের ঠক, চিরদিনের ঠক"। তাই যদি আপনি মনে করেন যে আপনার সঙ্গী একই ভুল দুবার করতে পারে, তাহলে একটি কংক্রিট প্ল্যান করুন যাতে এটি আবার না ঘটে। জীবনে চাকরি, বন্ধু এবং যারা আপনার ওপর প্রভাব বিস্তার করে, সেগুলি পাল্টে ফেলা একটা ধাপ হতে পারে এবং অন্যটি দম্পতির কাউন্সেলিং।

মৃত্যু পর্যন্ত একসাথে :

মনে রাখবেন যে আপনারা উভযেই আপনাদের পরিবারের সামনে, বিশেষত ঈশ্বরের কাছে এক পবিত্র অঙ্গীকারে আবদ্ধ হয়েছেন। আপনারা সুখে দুঃখে একে অপরের সাথে থাকতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তার মানে এই নয় যে আপনাকে একটি অবমাননাকর বিবাহের মধ্যেও থাকতে হবে, এর মানে হল যে যদি আপনি আপনার মধ্যে শান্তি এবং শক্তি খুঁজে পান এবং মনে করেন যে এটিকে বাঁচানো দরকার, আপনাকে তা কার্যকরী করার জন্য চেষ্টা করা উচিত।

Source: theindusparent