এই ৭ টি কথা আপনার পুত্রবধূকে কখনোই বলবেন না

lead image

কিছু কিছু শ্বাশুড়ি ও পুত্রবধূর মধ্যে দেখা যায় দারুণ সুসম্পর্ক, আবার কিছু ক্ষেত্রে তা দেখা যায় না। যদিও আমাদের শ্বাশুড়িরা অনেক সময়, ভাল ভেবেই, খানিকটা প্রভুত্ব ফলাতে যান আর সেটিই ভুল্ বোঝাবুঝির সৃষ্টি করে।

যদি আপনি পুত্রবধূর সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চান, তাঁর প্রতি এই কথাগুলি বলা থেকে বিরত থাকুন অথবা একটু অন্য রকম ভাবে বলুন যাতে ভুল বার্তা না যায়।

#১ "এটা আমি এভাবে করতাম"

আপনার বৌমা একটি প্রাপ্তবয়স্কা নারী, এবং সাধারণত নিজেই নিজের কাজগুলি করতে সক্ষম। যতক্ষণ না তিনি আপনার সাহায্য বা পরামর্শ চাইছেন, অযাচিত ভাবে যদি তাঁকে বলতে থাকেন যে আপনি এটা অন্যরকম ভাবে করতেন, তাহলে তাঁর মনে হবে আপনার চোখে তিনি যথেষ্ট ভাল নন।

#২ "তোমার সন্তানদের এটা করতে দেওয়া উচিত নয়"

এই না-না করাটা খুব বড় ব্যাপার, কারণ আপনাকে মনে রাখতে হবে যে এই বাচ্চারা আপনার নয়। আপনার নাতি-নাতনিকে কিভাবে মানুষ করা হবে সেটা আপনার ছেলে এবং বৌমার ব্যাপার, এবং তাঁদের এই সিদ্ধান্ত আপনাকে মেনে নিতে হবে যদি না আপনার নাতি-নাতনির জীবন বিপন্ন হয়।

#৩ "হ্যাঁ, কিন্তু যখন আমি করি, আমার ছেলে এটা সবসময় পছন্দ করে"

আপনার ছেলে একটি প্রয়োজনেই আপনার বৌমাকে বিয়ে করেছেন, এবং তিনি নিশ্চয়ই ইতিমধ্যে তাঁর পছন্দ-অপছন্দের বিষয়ে জেনে গেছেন। কাজেই তাঁকে যদি আপনি বলেন যে আপনি কোনোকিছু করলে আপনার ছেলে সেটা পছন্দ করে, তাহলে তাঁর শুধু মনে হবে যে আপনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এবং সেটা তাঁর ভাল লাগবে না।

#৪ "কেন তুমি এটা এভাবে করনি?"

শুনতে খারাপ লাগা ছাড়াও, এই ধরণের কটাক্ষের মানে দাঁড়ায় যে তিনি যা করছেন সবই ভুল, এবং আপনি কাজটি আরও ভালভাবে করতে পারেন। কোন মহিলার এটা ভাল লাগতে পারে না যে তাঁদের ঘর তাঁর নিজের নিয়ন্ত্রণে নেই, এবং আপনি তাঁকে বলবেন যে নিজের বাড়িতে তিনি কি করবেন না করবেন, এটা নিশ্চয়ই তাঁর ভাল লাগবে না।

#৫ "কখন তুমি আমাকে নাতিনাতনি দেবে?"

কখন সন্তান চাইবে, সেটা দম্পতির ব্যাপার। সর্বদা তাঁকে নাতিনাতনির জন্য প্রশ্ন এবং তাগাদা করলে শুধুমাত্র তাঁকে বিরক্ত করা হবে। মনে রাখবেন যে আপনি হয়তো একটি শিশুর যত্ন নিতে আগ্রহী কিন্তু তাঁরা এর জন্য প্রস্তুত না থাকতেও পারেন। চূড়ান্তভাবে, এটি তাঁদেরই সিদ্ধান্ত হওয়া উচিত।

#৬ "তুমি কি বাচ্চাকে জাঙ্ক ফুড দিয়েছ? আমি কখনোই এটা দিতাম না, এটা এত অস্বাস্থ্যকর! যখন আ্মার বাচ্চারা ছোট ছিল, আমি কখনোই তাদের ফাস্ট ফুড দিই নি।"

যখন এ জাতীয় কথা বলেন, আপনাকে মনে রাখতে হবে যে তাঁদের বাচ্চাকে কিভাবে বড় করবে, সেটা আপনার ছেলে এবং বৌমার দায়িত্ব। এটা ঠিক যে আপনি তাঁদের পরামর্শ দিতে পারেন, কিন্তু তাঁরা এটিকে  একটি নিয়ম বলে মেনে নেবে কিনা, সেটা দেখা আপনার উপরে নেই।

#৭ "হ্যাঁ, আমি জানি যে তাদের শোবার সময় ৮ টায়, কিন্তু আমি ভেবেছিলাম যে তারা যখন আমার সাথে আছে, ১০ টা পর্যন্ত থাকতে পারে।"

সময়সীমা এবং নিয়ম একটি কারণের জন্যই তৈরী করা হয়, এবং তাঁদের সন্তানদের জন্য আপনার পুত্র এবং পুত্রবধূ যে নিয়ম নির্ধারিত করেছেন সেটিকে মেনে চলা আপনার কর্তব্য। আপনি যদি অনবরত তাঁদের শিশুদের জন্য নির্ধারিত নিয়মগুলি ভেঙ্গে চলতে থাকেন তাহলে আপনার বৌমা শীঘ্রই নাতি-নাতনীদের সঙ্গে আপনি যে সময়টা কাটান, সেটা কম করে দিতে শুরু করবেন।