এই চারজন কীর্তিমান়্ ও সাহায্যকারী শ্বশুর-শ্বাশুড়ী দেখিয়েছেন যে কিভাবে আপনার বৌমাকে আনন্দে রাখবেন

lead image

সম্প্রতি, শর্মিলা ঠাকুর তাঁর পুত্রবধু সম্পর্কে একটি জোরালো অনুকূল মন্তব্য করে শ্বাশুড়ী-বউ এর মধ্যে সম্পর্ক বিষয়ে একটি নতুন প্রবণতা সৃষ্টি করেছেন।

শর্মিলা বলেছেন, "শাশুড়ী হিসাবে, আমি আমার ছেলেকে বলব যে সে তার স্ত্রীর।  আমি তার মা হতে পারি কিন্তু সে আজীবন তার সাথী হতে চলেছে"

এভাবে মহৎ হৃদয়ের পরিচয় দিয়ে শর্মিলা শুধু যে তাঁর পুত্রবধূকে যথাযোগ্য মর্যাদা এবং নোতুন সংসারে তার প্রাপ্য সম্মান দিয়ে অসংখ্য মানুষের হৃদয় জয় করেছেন তাই নয়, তিনি কুন্ঠাহীণ হয়ে তাঁর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতেও পেছপা হন নি।

তিনি আরো বলেন, "সর্বোপরি সে আমার ছেলের জন্য তার মা-বাবাকে ছেড়ে এসেছে।  আমাকে এর প্রতিদান দেওয়া উচিত।  আমার ছেলে ও তার স্ত্রীর জন্য এটাই আমার সঠিক কর্তব্য কারণ, অন্য মায়ের গর্ভে জন্মালেও সে তো আমারই মেয়ে।"

শর্মিলার এই নিঃস্বার্থ অনুভূতি, নতুন মা কারিনা কাপুর খানের জন্য আমাদের পুলকিত করে,  কারণ

এই কথগুলি এমন সময়ে এসেছে যখন কারিনার সবচেয়ে বেশী প্রয়োজন তার স্বামীর প্রেম ও সমর্থন। এই মন্তব্য পুত্রবধূর সাথে শ্বশুর-শ্বাশুড়ীর সম্পর্কের ক্ষেত্রে এক নোতুন দিগন্তের সূচনা করেছে।

যদি সব শ্বশুর-শ্বাশুড়ী এরকম স্বর্গীয় চেতনাসম্পন্ন হন তাহলে পৃথিবীতে সম্পর্কগুলিও স্বর্গীয় হয়ে উঠবে।

তাই লক্ষ লক্ষ মানুষকে তাঁর মতো হতে অনুপ্রাণিত করার পথ প্রদর্শিকা রূপে শর্মিলা ঠাকুর একশোয় একশো নম্বর পেলেন।

এই বর্ণাঢ্য শহরে আরও কিছু অন্য সহানুভুতি সম্পন্ন শ্বশুর-শাশুড়ীর প্রতি দৃষ্টিপাত করা যাক।

১। নিখুঁত শ্বশুর :  অমিতাভ বচ্চন

তিনি তাঁর বহু ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের সবচেয়ে উচ্চকন্ঠ সমর্থক এবং সর্বদা ঐশ্বর্যের যে কোনও কৃতিত্ব সবার আগে পোস্ট করেন এবং তাঁকে অভিনন্দন জানান।

কান চলচ্চিত্র উৎসবে কেতাদুরস্ত উপস্থিতি হোক বা তাঁর অভিনয়, সবসময়ই তাঁকে প্রকাশ্যে উৎসাহিত করে বার্তা দেন।  তিনি টুইটারে তার "বাহুরানী" এবং "রানী"র জন্য একটি সুমিষ্ট বার্তা পোস্ট করেছেন :

 

//platform.twitter.com/widgets.js

সম্প্রতি যখন ঐশ্বর্যর বাবা মারা যান, তখন যেভাবে মৃত্যুর দার্শনিক ব্যাখ্যা করে তিনি শোকপালন করেছিলেন তা থেকে আমরা তাঁর প্রকৃত ভালবাসার স্বরূপ বুঝতে পারি।  তাঁর আকুলতা দেখে বোঝা যায় যে তিনিও এ মৃত্যুতে সমান আঘাত পেয়েছেন এবং এই দুঃখপ্রকাশ দ্বারা তিনি তাঁর পুত্রবধূর জীবনের কঠিনতম সময়ে পাশে দাঁড়িয়ে ভরসা জুগিয়েছেন।

তিনি আমাদের দেখিয়েছেন যে সুখে দুঃখে পাশে দাঁড়িয়ে এবং ভালবাসা আর শুভেচ্ছা জানিয়ে কিভাবে প্রকৃত উদ্দীপক সম্পর্ক গড়ে তোলা যায়।

২। সদয় শ্বশুর  : পঙ্কজ কাপুর

কীর্তিমান শহরে আরেকটি ভাগ্যবতী মেয়ে শাহিদ কাপুরের স্ত্রী মীরা রাজপুত। মীরা যখন কফি উইথ করণ এ নিজেকে উপস্থাপিত করল, সে তার শ্বশুরবাড়ী সম্বন্ধে পূর্ণ স্বচ্ছন্দ্ বোধ করত এবং যখন সে তাঁদের সাথে থাকে তখন মনে করে যে সে তার নিজের মা-বাবার সাথে আছে, তার শ্বশুর পঙ্কজ কাপুর তাঁর মহানুভবতা প্রকাশ করে একবার বলেছিলেন যে  কাপুর পরিবারকে মীরা আরও ঘনিষ্ঠ করেছে।

একজন সত্যিকারের বড় হৃদয়ের মানুষই স্বীকার করতে পারে যে নতুন সদস্যের আগমনে পরিবারের বাঁধন  আরও শক্তিশালী হয়েছে।  কাপুর অতীতেও মীরার প্রশংসা করেছেন এবং বলেছেন যে সে খুবই সুন্দর।  এই রকম শ্বশুরেরা নতুন জীবন শুরু করার সময় নতুন সংসারে এক সুবাতাস নিয়ে আসে।

৩। উৎসাহব্যঞ্জক শাশুড়ি : পামেলা চোপড়া

আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে বিয়ের পর চোপড়া পরিবারে তাঁর জীবন কিভাবে কাটছে সে সম্পর্কে রানী মুখার্জী কম কথা বলতে পছন্দ করেন।  কিন্তু বলিউডের ভেতরের খবর যাঁরা রাখেন, তাঁদের মতে রানী তার শ্বাশুড়ী পামেলা চোপড়ার কাছ থেকে সত্যিই ভাল ব্যবহার পান।

rani mukerji

একবার এক সাক্ষাৎকারে পামেলা চোপড়া বলেন যে রানী এসে তার ছেলে আদিত্যর আরও ভালোর দিকে পরিবর্তন ঘটিয়েছে।  ভাবুন, কতজন শ্বাশুড়ী সত্যি সত্যিই তাদের পুত্রবধূদের প্রাপ্য কৃতিত্ব দেন?

৪। বন্ধুর মতো শাশুড়ী : বৈশালী দেশমুখ

দেশমু পরিবারে জেনেলিয়া ডি'সুজার প্রবেশ একটি বহুচর্চিত ব্যাপার ছিল।  হাজার হোক, এটা ছিল  প্রভাবশালী ও দরবারী রীতি-নীতি সম্পন্ন রাজনৈতিক পরিবারে এক দুঃসাহসী গোয়ানীজ মেয়ের বিবাহের কাহিনী।  যাই হোক, জেনেলিয়া তার নতুন ভুমিকায় জলের মধ্যে মাছের মতোই স্বচ্ছন্দ হয়ে উঠল এবং আমাদের মনে হয় এতে তার শ্বাশুড়ীর কৃতিত্বও কম নয়।  বহুবার আঞ্চলিক ছায়াছবির প্রদর্শনে  শ্বাশুড়ী বৌমা কে একত্রে দেখা গেছে।

 

হতে পারে তাঁদের দুজনেরই আঞ্চলিক ছায়াছবির প্রতি আগ্রহ আছে কিন্তু এটা ঘটনা যে সিনেমার দিনগুলিতে  ওঁদের বন্ধুর মতো জুটি, তাঁদের পরিবারে বিরাজমান মধুর আবেগের বিষয়েও জানান দেয়।

জেনেলিয়াও যে সমানভাবে ভালবাসার প্রতিদান দেন তা আমরা জানতে পারি যখন দেখি যে তিনি সোস্যাল মিডিয়াতে মাদার'স ডে উপলক্ষে তাঁর মা এবং শ্বাশুড়ী-মাকে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি ছবি পোষ্ট করেছেন।  উপরন্তু তিনি লিখেছেন যে কিভাবে দুই মা'কেই তিনি তাঁর জীবনে ভালবাসেন আর পুজো করেন।

Source: theindusparent