উদ্ভট কান্ড! মুম্বাই এর একটি শিশু 'গর্ভবতী' অবস্থায় তার যমজ ভাই সঙ্গে জন্মগ্রহণ করে।

একটি অদ্ভুত এবং অদ্বিতীয় ঘটনার সংঘটনে, মুম্বাই শহরে একটি শিশু তার যমজ ভাই এর সঙ্গে 'গর্ভবতী' হয়ে জন্মগ্রহণ করে!  হ্যাঁ, আপনি ঠিকই পড়েছেন।

মুম্বাই শহরের মুম্ব্রা অঞ্চলে অবস্থিত বিলাল হাসপাতালে শিশুটির জন্মগ্রহণ করার খানিকক্ষণ পরেই ডাক্তারেরা তার পাকস্থলীর মধ্যে একটি অর্ধগঠিত মানব শরীরের অংশ আবিষ্কার করেন।  এই অগঠিত পুত্র শিশুটির দুটি পা, একটি হাত এমনকি মগজও ছিল।

'ভ্রুণের মধ্যে ভ্রুণ' এর একটি বিরল নজির

বিলাল হাসপাতালে রেডিয়োলজি বিশেষজ্ঞ ডাঃ ভাবনা থোরাট নবজাত শিশুটির রুটিন স্ক্যান করার সময় এই অস্বাভাবিকতা দেখতে পান এবং সঙ্গে সঙ্গে অন্যান্য বিশেষজ্ঞদের জানান।

Image courtesy: Dailymail/Newslions/SWNS.com

"আমি শিশুর পেটে একটি পিন্ড দেখতে পাই,"  স্ক্রল.ইন এর সঙ্গে কথা বলার সময় ডাঃ থোরাট বলেন।  "তার মধ্যে কিছু হাড়ের উপস্থিতি আমাকে কৌতুহলী করে,"  তিনি আরও বলেন।

নিশ্চিত হবার জন্য আরও কিছু পরীক্ষার পর দেখা গেল যে শিশুটির পেটের মধ্যে একটি থলি আছে।

"ভ্রূণ তারই রক্ত সরবরাহ এবং পুষ্টি খাচ্ছিল"

"থলির ভিতরে, একটি মাথা এবং তার মধ্যে বিকশিত মগজ সহ আর একটি শিশু ছিল,"  ডাঃ থোরাট বলেন এবং  আরও জানান, "আমি নীচের দিকের প্রত্যঙ্গগুলি দেখতে পেলাম এবং আমরা ভাবলাম যে পরজীবি যমজ ১৩ সপ্তাহ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়ে তারপর থেমে গিয়েছিল।"   দুর্ভাগ্যবশতঃ, এই যমজ পরজীবি শিশুটিকে বাড়তে দিচ্ছিল না এবং এটিকে বিচ্ছিন্ন করার প্রয়োজন দেখা দিয়েছিল।

"তার পাকস্থলী ফুলতে শুরু করেছিল।  ভ্রূণটি তারই রক্ত সরবরাহ এবং পুষ্টি খাচ্ছিল আর সেই সঙ্গে তার প্রত্যঙ্গগুলি্কে দমন করছিল," একটি দৈনিক পত্রিকাকে ডাঃ থোরাট জানালেন।

জন্মের চার দিন পর, যাকে এখন বলা হচ্ছে "ভ্রুণের মধ্যে ভ্রুণ" এর একটি বিরল নজির, তার জন্য টাইটান হাসপাতালে শিশুটিকে অস্ত্রোপচার করা হয়।

সৌভাগ্যবশত, শিশু এবং তার মা উভয়েরই স্বাস্থ্য ভাল আছে।

এই বিরল ঘটনাটি আর একবার "ভ্রূণের মধ্যে ভ্রুণ" এর ধারণাকে বোঝার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছে, যাতে অনেক ক্ষেত্রে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।  তাই এই অস্বাভাবিকতা, যা কিনা রুটিন গর্ভাবস্থার পরীক্ষাতেই জানা যেতে পারে, তার সম্পর্কে আপনার যা যা  জানা দরকার, এখানে দেওয়া হল।

ভ্রুণের মধ্যে ভ্রূণ, ব্যাপারটা কি?

এই ক্ষেত্রে ডাক্তারদের বিশ্বাস যে যমজ পরজীবিয় ভাই একই ডিম্বানু থেকে উৎপন্ন সদৃশ যমজের এর একটি অংশ, যা বিকশিত হবার সময় আসল শিশুর দেহে প্রবেশ করে।

'ভ্রুণের মধ্যে ভ্রুন' এর ডাক্তারি পরিভাষায়, একটি পরজীবিয় যমজ আসল যমজের ভিতরে অবস্থান করে। সাধারণতঃ ভ্রূণের বিকাশের সময় অনুপযুক্ত স্থান নির্ণয়ের কারণে এরকম ঘটে।

এরকম হওয়া বেশ বিরল এবং সম্ভবত ৫০০ তে একটি হয়।  একটি সাম্প্রতিক উদাহরণ দেখা গিয়েছিল যখন একটি ১ বছর বয়সী মেয়ের পেট থেকে সাড়ে তিন কেজি ওজনের বেড়ে চলা ভ্রুণ অপসারণ করা হয়েছিল। উঠছে। এই উদ্ভট ঘটনা সম্পর্কে এবং তারপর কি হল এখানে পড়ুন।