উঁকি ঝুঁকি : আমরা আপনাকে গৌরী ও শাহরুখ খান এর জমকালো বাড়ি 'মন্নত' এর ভিতরে নিয়ে যাব

শাহরুখ খানের সুন্দর বাড়ি 'মন্নত' তাঁর রাজকীয় প্রতিষ্ঠার সঙ্গে মানানসই। আমরা আপনাকে মুম্বাইয়ের সবচেয়ে শৈল্পিক এবং জমকালো বাংলোগুলির একটির ভিতরে নিয়ে যাব!

অভিনেতা শাহরুখ খান শুধু বলিউডের বাদশা নন, তিনি মুম্বাইয়ের প্রধান ভূসম্পত্তিরও বাদশা। বিস্তীর্ণ ভূখন্ডের শেষ প্রান্তে অবস্থিতমন্নততাঁর গর্ব এবং গৌরব।

বান্দ্রাতে সমুদ্রের মুখোমুখি বাংলো 'মন্নত' তার ঐতিহ্য এবং অবশ্যই ভারতের অন্যতম বিখ্যাত নামের একটি মানুষ সেখানে বসবাস করার জন্য সুপরিচিত।  মন্নত একটি টুরিস্ট স্পটে পরিণত হয়েছে।  শাহরুখ খানের বহু অনুরাগী মহা তারকার বা এমনকি তাঁর পরিবারের কারও এক ঝলক দর্শন পাবার জন্য প্রতিদিন সেই বাড়ীর বাইরে ভীড় করেন।  

স্বাভাভিক ভাবেই, এর বাসিন্দারা বাড়িটির বর্তমান রূপ দিয়েছেন। এটা ঠিক যে মন্নত শাহরুখ খানের বাসনার ফসল হতে পারে কিন্তু এটি তাঁর স্ত্রী গৌরীর সন্তানতুল্য।  পরম মমতায় তিনি বাড়িটির অন্তর্সজ্জা পরিকল্পনা করেছেন যাকে আজ ভারতের এক শিল্পসুষমাময় নিকেতন বলে গণ্য করা হয়

গৌরী কিছুদিন আগে একটি স্থাপত্য পত্রিকার জন্য তার 'বিনম্র' বাসভবনের দরজা খুলেছিলেন, তিনি আর একবার তাঁর পোষাকের আলমারি, যার ভেতর অনায়াসে হাঁটাচলা করা যায়, ভক্তদের ক্ষণিক দর্শনের জন্য উন্মুক্ত করেছিলেন।

যাঁরা সেই বিশেষ ছবিগুলি দেখতে পাননি, তাদের জন্য এখানে মন্নত এবং তার মহিমান্বিত ইতিহাসে আমরা কিঞ্চিত উঁকি দিচ্ছি

আজকে যার মূল্য প্রায় ২০০ কোটি টাকা, সেই বাড়ি এক সময় ছিল এক ছোট্ট বাংলোর “ভিলা ভিয়েনা” নামের। এক পার্সি ভদ্রলোক কুকু গান্ধী তৈরি করেছিলেন এই বাংলো। পরবর্তী কালে গান্ধীর পরিবার বাড়িটি বিক্রি করেন নারিমান ডুবাস নামের একজন কে। শাহরুখ খান এই ডুবাসের থেকে বাংলো টি কেনেন সাড়ে ১৩ কোটি টাকায়।

প্লট টা কেনার পর তিনি সেই বাংলো টি কে বাড়ান। আজ মন্নত ৬ তলা বাড়ি।

যদিও শাহরুখ খান প্রায়ই তাঁর ফ্যান দের অভিবাদন জানাতে বেরিয়ে আসেন, কোনও কোনও বিশেষ দিনে তিনি তাঁদের জন্য নিজের বাড়ির দরজাও খুলে দেন – যেমন ঈদ।

গৌরি এক স্থাপত্য ম্যাগাজিনে তাঁদের বাড়ির বেশ কিছু ছবি দিয়েছিলেন। তাতে আমরা পুরো পরিবারকে এমন কি শাহরুখের বোন শেহনাজ লালারুখ কেউ দেখতে পাই।

গৌরি খান ইন্তিরিয়ার ডিজাইনিং করেন এবং তিনি টা শুরু করেন মন্নত দিয়েই।

এক ইন্টার্ভিউ এ তিনি জানান, “এই নেশা আমাকে তখন ধরে যখন আমি আমাদের বাড়ি মন্নতের ইন্তিরিয়ার করা শুরু করি আমাদের আর্কিটেক্ট এর সাথে। আমরা গৃহপ্রবেশে কিছু বন্ধুদের নিমন্ত্রণ করে ছিলাম তারা আমার বাড়ি সাজানো দেখে খুবই প্রশংসা করেছিল!”

সেই অনুপ্রেরণা তাকে এই নেশা কে পেশা হিসেবে বেছে নিতে সাহায্য করে। “এভাবেই শুরু হয় গৌরি খান স্টুডিও। এখন আমার দুটো স্টোর আছে বম্বে তে এবং একটি দিল্লীর ডিফেন্স কলনি তে,” তিনি জানান।

মন্নতের সব রুমগুলি এই দম্পতির শিল্প রুচি মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। তাই লাল রঙ খুব ব্যাবহার করা হয়েছে কারন এটা শাহরুখ এবং গৌরি দুজনেরই পছন্দ।

ডিজাইন করা নিয়ে গৌরি বলেন, “ঘর যদি আপনার পছন্দ মত ডিজাইন করা হয় তবে সেই জায়গাটা আপনাকে আরাম দেবে। ডিজাইন এটা মাথায় রেখে করতে হবে যে আপনি কোন জায়গার ডিজাইন করছেন আআর সেই স্থানটির প্রধান উদ্দেশ্য কি। সেটা যদি আপনার বাসস্থান হয় তবে সে জায়গা যেন আপনার ব্যক্তিত্বকে দর্শায়”।

মন্নতের ডিজাইনে গৌরি তৈরি করেছেন এক খামখেয়ালি জটিলতা এবং এক আন্তরিকতা। বাড়িতে ছ্রান ছিটান আছে নানা শিল্প, স্থাপত্য এবং ছবি।

তাঁর পছন্দ নানারকম অ্যান্টিক। “আমি অ্যান্টিক ভীষণ পছন্দ করি”, বলেন গৌরি। তিনি মাত্র ৪ বছরের ডিজাইন ক্যারিয়ার এ অনেকের ঘর সাজিয়েছেন।

তার ম্যাগাজিন শুটের সময় আমরা দেখতে পাই তার ওয়াক ইন ক্লসেটের ছবি। তিনি এই বাঁ দিকের ছবিটি শেয়ার করেন তার টুইটার হ্যান্ডলে।

ছবির সাথে তিনি লেখেন, “এক পুরো রুম আমার জামাকাপড় ঠিক মত সাজিয়ে গুছিয়ে রাখার জন্য। তাই আমার পছন্দ ওয়াক ইন ক্লসেট”

নিশ্চয় তার ঘরটি দারুন ভাবে গোছান, জামা কাপড় এবং অ্যাক্সেসরি সবের জন্য আলাদা স্থান নির্দিষ্ট।

এই বিশাল বাংলোয় থাকেন পাঁচ সদস্য। শাহরুখ, গৌরি, সুহানা, আরিয়ান (সে আমেরিকায় পড়াশোনা করছে) এবং লালারুখ। এই বাড়ি শুধু শিল্পিসুলভ নয়, এতে রয়েছে সব রকম দরকারি ব্যাপার।

এই বাড়িতে আছে জিম, সুইমিং পুল, এবং বাগান। এর আয়তক্ষেত্র ২৪৪৬ স্কয়ার মিটার, (২৬,৩২৮ স্কয়ার ফিট) এই সমুদ্র মুখি বাড়ি বম্বের সবচেয়ে সুন্দর ঘর।

কিন্তু মনে রাখবেন এই সৌন্দর্যের পেছনে রয়েছেন এক মা যিনি চিরাচরিত ডিজাইন এর সাথে পরীক্ষা করতে এবং ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত ছিলেন।

গৌরির কথায়, “আমার সবসময় ডিজাইন এ মন ছিল। বিলাসিতা এবং স্টাইল আমার কাজের প্রধান উপাদান। আমি ডিজাইনের ব্যাপারে ভীষণ আবেগপূর্ণ – সে জামা কাপড়ই হোক, বা ফার্নিচার, আমি মনে করি প্রত্যেকের সব সময় এক্সপেরিমেন্ট করা উচিত”।

Source: theindusparent