আমি কঙ্গনার সঙ্গে কখনও একান্তে সাক্ষাৎ করিনি: হৃতিক রোশন

মনে হচ্ছে কঙ্গনা-হৃতিক বাদানুবাদ এখন বলিউডি যুদ্ধে পরিণত হয়েছে আর তাতে অন্যান্য সেলিব্রিটিরাও হৃতিকের সমর্থনে যোগদান করছেন।

কঙ্গনা-হৃতিক বিতর্ক মন্দীভূত হবার কোনও লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। ঠিক যখনই মনে হচ্ছে যে এবার বুঝি এই দুই মহাতারকার মধ্যেকার সব সত্য বেরিয়ে এসেছে, ঠিক তখনই আরও কিছু তথ্য বেরিয়ে এসে পুরো ব্যাপারটা আগের থেকেও বেশী তালগোল পাকিয়ে দিচ্ছে।

এবার স্বয়ং হৃতিক রোশন, যাকে বলা যেতে পারে এক বিস্ফোরক বিবৃতি পেশ করে এই তারকা দাবী করেছেন যে তান্রা দু'জন কখনওই একান্তে মিলিত হন নি। কতগুলি ক্রমিক সাক্ষাতকার দ্বারা হৃতিক তাঁদের দু'জনের মধ্যে কথিত কোনরকম সম্পর্কের দাবী খন্ডন করেছেন।

নেটওয়ার্ক 18 কে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে হৃতিক বলেছেন, "পরিস্থিতি মোটেই কোনও প্রেমিক যুগলের ক্ষুদ্র কলহ নয়, আবার বলছি, দু'জনের মধ্যে কোনোদিন কোনও সম্পর্ক ছিল না এবং তা কখনও শুরুই হয় নি।"

অনেকের মতে হৃতিক, যিনি এই বিতর্কটি সম্বন্ধে ক্রমাণ্বয়ে টিভি সাক্ষাৎকার দিয়ে চলেছেন, এখন অনেক শান্ত, সংযত এবং এমনকি মনে হচ্ছে যে এইসব সাক্ষাৎকারে কি বলতে হবে, তার যথেষ্ট মহড়া দিয়েই তিনি এসেছেন।

লক্ষ্য করার বিষয়, যেখানে কঙ্গনা রানাওয়াত বার বার দাবী করছেন যে দুই তারকার এই সম্পর্ক সাত বছরের কম নয় সেখানে হৃতিক তাঁর সঙ্গে একবারও একান্তে দেখা করার কথা পর্যন্ত অস্বীকার করছেন।

তিনি বলছেন যে যদিও তাঁরা একসঙ্গে সিনেমায় অভিনয় করীছেন, একমাত্র সেই সময়েই কঙ্গনার সঙ্গে বার্তালাপ করেছেন কারণ অনেক সময় কঙ্গনা তাঁর কাছে পেশাগত পরামর্শ চাইতেন। তিনি জোর দিয়ে বার বার একথাও বলছেন যে তিনি কখনও কঙ্গনাকে একটা মেল পর্যন্ত পাঠান নি, যদিও কঙ্গনা তাঁকে একগুচ্ছ মেল পাঠিয়েছেন, কারণ তিনি তাঁর নিজের জীবন নিয়ে খুবই ব্যস্ত ছিলেন।

প্রমাণ না থাকাটাই হৃতিকের জোর

ব্যাপারটার বিষয়ে নীরবতা ভঙ্গ করে হৃতিক বলেছেন যে এটা অসম্ভব যে দু'জন হাই-প্রোফাইল সেলেব্রিটির এরকম একটা দীর্ঘ-মেয়াদী সম্পর্ক চলবে আর কেউ তার আভাষ পর্যন্ত পাবে না। তিনি তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলিতে একটা জবাব পোষ্ট করেছেন।

 

A post shared by Hrithik Roshan (@hrithikroshan) on

ব্যাপারটা খুলে আরও বলেছেন, "সত্যিটা হল যে আমি আমার পুরো জীবনে কদাচ কথিত ওই মহিলার সঙ্গে একা একা মিলিত হই নি। হ্যাঁ, আমরা একসঙ্গে কাজ করেছি, কিন্তু একান্তে ব্যক্তিগত কোনও মেলামেশা কখনও হয় নি। এটাই সত্যি।"

তিনি আরও বলেছেন, "প্রকৃতপক্ষে আমি এটার থেকেও সাংঘাতিক, সংবেদনশীল এবং ধ্বংসাত্মক কিছু থেকে নিজকে রক্ষা করছি।"

বলিউডের প্রবেশ

এই চলমান বিতর্ক এখন একটি যুদ্ধে পরিণত হয়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে যা সমগ্র বলিউডে ছড়িয়ে পড়েছে। হৃতিকের বিবৃতির কিছু পরেই ফারহান আখতার তার ফেসবুকে একটি দীর্ঘ পোস্টে লিখেছেন যে কেন তিনি মনে করেন যে হৃতিককে অন্যায়ভাবে ফাঁসানো হচ্ছে।

 

Queen #KanganaRanaut says it as is. Agree?

A post shared by Filmfare (@filmfare) on

পোস্টে কোনও পক্ষের নাম না দিয়ে, ফারহান লিখেছেন যে যদি শুধু লিঙ্গ পালটে ফেলা যায় এবং কোনও একজন পুরুষ যদি এরকম হাজার হাজার ই-মেইল পাঠাতো তাহলে অবশ্যই মহিলাটিকে বেনিফিট অফ ডাউট  দেওয়া হতো।

ফারহান একমাত্র ব্যক্তি নন যিনি হৃতিককে সমর্থন করছেন, তাঁর অন্য বন্ধুরাও যেমন, টুইঙ্কল খান্না, সোনালি বেন্দ্রে, করণ জোহর এবং সোনাম কাপুরও হৃতিকের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন।

এ ছাড়াও এমনকি অভিনেতা ইয়ামি গৌতমও একটি সুদীর্ঘ পোষ্ট লিখেছস এবং আবার কারও নাম না করে ওই একই তর্ক দ্বারা সমাজের তাঁদেরকে প্রশ্ন করেছেন যাঁরা ইতিমধ্যেই মানুষটিকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন।