আমার স্বামী এবং আমি আলাদা বিছানায় ঘুমাই এটা কি স্বাভাবিক?

lead image

দুবছর আগে যখন আমার সন্তান জন্মায়, সে আস্বাভাবিক রকম কলিকে ভোগে এবং কিছুতেই সময়মত ঘুমাত না। আমরা সারা রাত তাকে ঘুম পাড়ানোর চেষ্টায় থাকতাম যাতে সে ঘুমালে আমরাও একটু ঘুমতে পারি।

আমি সেই সময় চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলাম কিন্তু আমার স্বামীর জন্য ব্যাপারটা খুবই কষ্টকর ছিল কারন সে কাজ করত মর্নিং শিফটে।

কয়েক মাস পর আমি বুঝলাম এই ব্যাপারটায় তার খুবই কষ্ট হচ্ছে এবং আমি তাকে বললাম সে যেন গেস্ট রুমে ঘুমায় যাতে আমাদের ছেলের কলিকের কান্নায় তার ঘুমের ব্যাঘাত না হয়।

ধীরে ধীরে আমার ছেলে ভাল হয়ে উঠল, আথচ ততদিনে আমরা আলাদা বিছানায় ঘুমানতে অভ্যস্ত হয়ে গেছিলাম।

আমরা নতুন রুটিন চালিয়ে গেলাম

এটা বলে রাখা দরকার যে আমরা আলাদা বিছানায় ঘুমাচ্ছিলাম মানে এই নয় যে আমাদের ঘনিষ্ঠতা কমে গেছিল। মাঝে মধ্যেই আমরা দুজনেই আমার স্বামীর বিছানায় অন্তরঙ্গ হয়ে উঠতাম, তারপর নিজের নিজের বিছানায় ঘুমাতাম।

এটা অস্বাভাবিক কিন্তু আমাদের জন্য সুবিধাজনক কারন এটা আমাদের দুজঙ্কে নিজের মত থাকার অবকাশ দেয়। আমি এবং আমার ছেলে দেরি অবধি ঘুমাই এবং আমার স্বামী সকালে জলদী উঠে কাজে বেরিয়ে যায়। যেহেতু আমরা আলাদা বিছানায় ঘুমাই কারুর শান্তিভঙ্গ হয় না।

আমার বন্ধুরা মনে করে আমি পাগল

এই ব্যাপারটা যখন আমি আমার বন্ধুদের জানাই তাড়া বলে আমি আমার রোম্যান্টিক জিবনকে মেরে ফেলছি। আমি চাই না যে এই ব্যাপারটা আমাদের সম্পর্ককে আঘাত করুক, কিন্তু এখনকার মত এটা কাজ করছে।

আমি মানছি যে আন্তরিকতা বিবাহে দরকারি কিন্তু সত্যি কথা বলতে বাচ্চাকে নিয়ে নাস্তানাবুদ অবস্থায় আমি চাই শান্তিতে ঘুমাতে।

প্রায় দুবছর এরকম চলছে এবং এখন এটা এক স্বভাব হয়ে গেছে যা আমরা ভাঙতে পারছি না। কিন্তু কখনও কখনও আমি ভাবি যে আমি কি বোকামি করছি? আমি আমার স্বামীকে এই ধারনা তৈরি করতে দিচ্ছি যে তার আমাকে শুধু সম্ভোগের জন্যই দরকার?

এটা বলা দরকার যে আমি যখন এক আধবার আমার স্বামীকে বলি যে আমাদের এবার এক বিছানায় ঘুমানো উচিত সে শুধু হেসে বলে যে আমআর এই ব্যাপারে খুশী থাকা উচিত যে আমার ঘুমের কোনও ব্যাঘাত হচ্ছে না। আমি এটাও পরি যে ভারতীয় ব্যাবস্থায় এটা আস্বাভাবিক মনে হলেও বিদেশে অনেক দম্পতিই এরকম করছে।

অনেকের নিজস্ব অবকাশের দরকার আবার অনেকে আমাদের মতই আরামে ঘুমাতে চায়।

আমি এই ফোরামে জিজ্ঞাসা করতে চাই যে আপনাদের কি মতামত, বাকি নতুন মা-বাবারা কি ভাবে চাপ সামলান এবং এই ব্যাবস্থার ব্যাপারে আপনাদের কি মত?